জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, কারোও রাশিফলের চতুর্থ, সপ্তম , অষ্টম  ও দ্বাদশ ঘরে মঙ্গলের প্রভাব থাকলে সেই ব্যক্তি মাঙ্গলিক দোষ রয়েছে বলে মনে করা হয়। এই দোষ সাধারণত বিবাহ পরবর্তী জীবনে সমস্যার সৃষ্টি করে। রাশিচক্রের এই উল্লেখযোগ্য কয়েকটি ঘর ছাড়া বাকি ভাবে মঙ্গল শুভ ফল দান করে। এর মূল অর্থ হল মঙ্গল এই বাকি ভাবগুলিতে অবস্থান করলে ভৌমদোষ বা মাঙ্গলিক দোষের অশুভ ফল দেখা যায় না। 

আরও পড়ুন- চাণক্য নীতি, বিপদের দিনে এই বিষয়গুলি অবশ্যই মনে রাখা উচিৎ

জ্যোতিষীদের মতে এমন প্রচুর জাতক জাতিকা আছেন যারা মাঙ্গলিক অর্থাৎ মাঙ্গলিক দোষ থাকা সত্বেও সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন। কোন কোন ভাবে মঙ্গলের অবস্থান থাকলে কোনও ক্ষতি হয় না তা জেনে নিন। বৃষ ও তুলা রাশির দ্বাদশ স্থানে, মেষ ও বৃশ্চিক রাশির চর্তুথ স্থানে, কর্কট ও মকর রাশির সপ্তমে এবং ধনু ও মীন রাশির অষ্টম স্থানে মঙ্গল অবস্থান করলে ভৌমদোষ বা মাঙ্গলিক দোষ হয় না। ধনু ও মীন রাশিতে মঙ্গল অষ্টম ভাবগ্রস্থ হলে মাঙ্গলিক দোষ হয় না।

আরও পড়ুন- ঘুমের আগে এই ১০ নিয়ম, জীবনে নিয়ে আসে আমূল পরিবর্তন

জাতক-জাতিকার লগ্ন, চন্দ্র অথবা শুক্র থেকে মকর প্রথম, দ্বিতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম অথবা দ্বাদশ ভাবে হলে মঙ্গলের কু-প্রভাব পড়বে না। কুম্ভ ও সিংহ রাশিতে মঙ্গলের অবস্থানে ভৌম দোষ হয় না। মিথুন বা কন্যার ঘরে মঙ্গল অবস্থান করলে কোনও ক্ষতি হয় না। মঙ্গল যদি কর্কট, সিংহ, মকর ও কুম্ভে অবস্থিত হয়, সে ক্ষেত্রে মাঙ্গলিক দোষ হয় না।