ধনতেরাস ২০২০ কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের ত্রয়োদশী তিথিতে পালিত হয়। ধনতেরাস দিওয়ালির আগে আসে। এই বছর ধনতেরাস পালিত হবে ১৩ নভেম্বর শুক্রবার। ধনতেরাসে কেনাকাটার বিশেষ তাত্পর্য রয়েছে। ধনতেরাসের দিন, স্বর্ণ ও রৌপ্যের জন্য কেনাকাটা করে যাতে তাদের বাড়িতে সুখ ও সমৃদ্ধি বজায় থাকে। এটা বিশ্বাস করা হয় যে ধনতেরাসের শুভ দিনে সোনার, রৌপ্য এবং বাসন কিনে ঘরে আনলে সারা বছর সমৃদ্ধি বজায় থাকে। ভগবান ধনবন্তরী এবং ধন-সম্পদের ঈশ্বর কুবের এই দিনে মহালক্ষীর উপাসনা করে ধন লাভ করেছিলেন।

আরও পড়ুন- ধনতেরাস-কালীপুজো ও ভাইফোঁটা, জেনে নিন এই বছরের নির্দিষ্ট তিথি ও সময়সূচী

ধনতেরাস পূজা মুহুর্ত-

ধনতেরাসের পুজোর শুভ সময়টি বিকেল ৫ টা বেজে ২৮  মিনিট থেকে বিকেল সাড়ে ৫ টার মধ্যে। ভগবান ধনবন্তরী এবং ধন-সম্পদের ঈশ্বর কুবের-এর এই দিনে উপাসনা করা হয়। এই দিনে ভগবান বিষ্ণু হাতে কুবের-এর হাতে অমৃতের পাত্র ধারণ করেছিলেন। বিশ্বাস করা হয় যে, ধনতেরাসের শুভ দিনে সোনার, রৌপ্য এবং পিতল বা অন্যান্য ধাতব জিনিসপত্র কেনা হয়। এই দিনে সোনা কেনা শুভ হিসেবে বিবেচিত। 

আরও পড়ুন- কর্কট রাশির কতটা উন্নতি হবে নভেম্বর মাসে, দেখে নিন

ধনতেরাসের দিন সকাল ৬ টা বেজে ৪২ মিনিট থেকে বিকেল ৫টা বেজে ৫৯ মিনিট পর্যন্ত স্বর্ণ কিনতে পারবেন। এদিনে সোনা কিনতে মোট ১১ ঘন্টা ১৬ মিনিট সময় পাওয়া যাবে। এই সময় স্বর্ণ কিনলে বাড়িতে সুখ, শান্তি এবং সমৃদ্ধির বিস্তৃতি হয়

ধনতেরাসের গুরুত্ব-

পৌরাণিক বিশ্বাস অনুসারে, কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের ত্রয়োদশীর দিন সমুদ্র মন্ত্রের সময় ভগবান ধনবন্তরী অমৃতের পাত্র হাতে হাজির হয়েছিলেন। তাই ধনতেরাসের দিন দেবী লক্ষ্মীর পূজা করা হয় । মনে করা হয় এই পুজোর ফলে ঘরে অর্থ ও শস্যের অভাব হয় না। এই দিন লক্ষ্মী এবং গণেশের প্রতিমা বাড়িতে আনতে হবে। এর পাশাপাশি ধনতেরাসের সন্ধ্যার সময় প্রদীপ জ্বালানোর রীতি রয়েছে। বিশ্বাস করা হয় যে এই প্রদীপটিকে যম প্রদীপ বলা হয় যা যমরাজের জন্য প্রজ্জ্বলিত হয়। বিশ্বাস করা হয় যে এই প্রদীপ জ্বালিয়ে অকাল মৃত্যুকে এড়ানো যায়।