পশ্চিমবঙ্গে এই নতুন বছরে বিভিন্ন রকমের দুর্যোগ লেগেই থাকবে। প্রাকৃতিক দুযোর্গর সঙ্গে,রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সংঘর্ষ এইগুলি লেগেই থাকবে।

এবছর লোকসভা নির্বাচন চলছে। পশ্চিমবঙ্গের ভাগ্য বলছে, সংঘর্ষ, ষড়যন্ত্র, হানাহানি লেগেই, শত্রুতা, কোন্দল এগুলি লেগেই থাকবে। রাজ্যে রাজনৈতিক কোন্দল তুমুল পর্যায় চলবে।

আবহাওয়ার দিক থেকে গ্রীষ্ম জুড়ে ঝড়, বজ্রপাত, এবং প্রবল তাপপ্রবাহ চলবে। গরম এমন পর্যায়ে পৌঁছবে যে উত্তরবঙ্গের জেলায় জলের অভাব পর্যন্ত দেখা দেবে। বর্ষায় প্রবল বৃ্ষ্টি এবং বন্যার সম্ভাবনাও রয়েছে বাংলায়। তাই চাষ আবাদেও তার প্রভাব পড়বে। বিভিন্ন ফসলের ফলন কম হওয়ায় ভাদ্রমাস থেকে সবজির দাম বাড়বে বাজারে। শুধু আলু এবং চা শিল্পের উৎপাদন বাড়বে।

বৃহৎ ক্ষেত্রের অর্থনীতি নিম্নমুখী হবে। কিন্তু ক্ষুদ্রশিল্পের উন্নতি হবে এই বছরে। স্বনির্ভর ক্ষেত্রে অগ্রগতি হবে। কর্মক্ষেত্রে চাকরির জোগান বাড়বে। কিন্তু জাতীয় অর্থনীতির মন্দার কারণে তার প্রতিফলন হবে না।

কিন্তু সাংস্কৃতিক জগতে উন্নতি রয়েছে। বহু ভাল ছবি ও নাটক মুক্তি পাবে। মৌলিক ভাবনা নিয়ে বহু ছবি হবে। কিন্তু বেশ কয়েকজন কিংবদন্তী প্রবীণ শিল্পীর জীবনাবসান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এই বছর।

খেলার ক্ষেত্রে জাতীয় স্তরে তেমন অগ্রগতির কোনও সম্ভাবনা নেই। তবে ব্যক্তিগত ভাবে কয়েকজন খেলার জগতের মানুষের সাফল্য রয়েছে। কয়েকটি ভূমিকম্পের সম্ভাবনা রয়েছে। এবছর মহাবিষ্ণুর পুজো করলে প্রতিকূলতা দূর হবে।কিন্তু পরিবেশ দূষণ নিয়ে সতর্ক থাকা উচিত। এই বছর বেশ কয়েকটি ভূমিকম্পের সম্ভাবনা রয়েছে। এবছর মহাবিষ্ণুর পুজো করলে প্রতিকূলতা দূর হবে।