বাস্তুশাস্ত্র, এই বাস্তু শব্দটি এসেছে বস্তু থেকে। বাস্তু বলতে সব কিছুকেই বুঝায়- তা একটি স্থান হতে পারে- কিংবা একটা বাড়িও হতে পারে। সভ্যতার শুরু থেকেই ভারতীয়  উপমহাদেশে শিল্পচর্চাকে ঊর্ধ্বে স্থান দেয়া হয়েছে। স্থাপত্যশৈলী উপবেদের অন্যতম বিষয়। স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্যশাস্ত্র চারটি উপবেদের অন্যতম।  প্রায় ৫০০০ বছর ধরে বাস্তুবিদ্যা কালের বিরুদ্ধে নিরন্তর সংগ্রামে জয়ী হয়েছে। বৈদিক যুগে স্থাপত্য বিজ্ঞান মূলত মন্দির নির্মাণে ব্যবহৃত হত। পরবর্তীতে তা বিস্তার লাভ করে। প্রাচীন যুগে স্থপতিরা কেবল নিছক তৈরির কাজ করতেন না, নির্মাণশৈলী ও পরিকল্পনার বিষয়টিও তদারক করতে হত তাঁদের। 

আরও পড়ুন- নতুন বছরে সুখ ও সমৃদ্ধি লাভে, ঠাকুর ঘরে পালন করুন এই নিয়মগুলি

 এই বাস্তুশাস্ত্র মতে, প্রতিটি বাড়িতেই অজান্তে এমন কিছু কাজ করা হয় যার প্রভাব পরে জীবনে। শাস্ত্র মতে, মানব জীবনে কর্মফল অনুযায়ী ব্যক্তি তাঁর জীবন ভোগ করেন। বাস্তু এমনই কিছু নিয়ম পালনের বিষয়ে জানিয়েছে, যেগুলি মেনে চললে সহজেই জীবনের কিছু সমস্যা কাটিয়ে ওঠা যায়। প্রতিদিন অজানা কিছু ভুল কাজের ফলে আমাদের জীবনে নেমে আসে চরম দুর্ভোগ। তাই এই সংক্রান্ত কিছু নিয়মগুলি মেনে চললে কাটিয়ে উঠতে পারবেন এই সমস্যাগুলি।

আরও পড়ুন- জানুয়ারি মাস কেমন প্রভাব ফেলবে কন্যা রাশির উপর, দেখে নিন

যদি ঘরে কোনও ভাঙ্গা আয়না থেকে থাকে তবে তা যত দ্রুত সম্ভব ঘর থেকে বিদায় করুন। কারণ ভাঙ্গা আয়না ঘরের নেতিবাচক শক্তি বাড়ায়। পাশাপাশি ভাঙ্গা আয়নায় মুখ দেখতে চরম খারাপ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয় বলে মনে করেন অনেকেই। রাতে শুতে যাওয়ার আগে রান্নাঘর পরিস্কার করে তবে ঘুমোতে যান। যেন একটিও নোংরা বাসন না থাকে। অপরিচ্ছন্ন রান্নাঘর দুর্ভাগ্য বাড়িয়ে তোলে বলে করে বাস্তুশাস্ত্র। আমাদের অপ্রয়োজনীয় বহু জিনিসপত্র আমরা অনেকেই ছাদের ঘরে রেখে দিই। এই কাজ একদমই করা উচিত নয়। ছাদের ঘরে এমন অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র বাড়ির নেতিবাচক শক্তিকে প্রভাবিত করে। যার ফলে পরিবারের প্রতিটি সদস্যের মধ্যে সমস্যার সৃষ্টি হয়। পরিবারের প্রয়াত সদস্যের বহুল ব্যবহৃত জিনিস জনসমক্ষে না রাখাই ভালো।