মঙ্গলকে শক্তির কারক গ্রহ বলা হয়। কোনও ব্যক্তির জীবনে গ্রহের শুভ ও অশুভ প্রভাব অবশ্যই দেখা যায়। জাতকের উপর কোনও গ্রহের শুভ অশুভ প্রভাবের ফলে সেই জাতকের জীবনে শুভ অশুভ যোগ নিয়ে আসে। যেই জাতক বা জাতিকার উপর এই গ্রহ শুভ ফলে দেয় বা প্রভাব বিস্তার করে তারা সাধারনত নিজের বিরুদ্ধে কোনও কথা একদম পছন্দ করে না, খুব রেগে যায়। এরা নিজেদের সফলতার জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতে পারে। এরা জীবনে প্রচুর বাধা অতিক্রম করে সাফল্য লাভ করে।

আরও পড়ুন- নতুন দশকের প্রথম দিন কেমন প্রভাব ফেলবে রাশিগুলির উপর,দেখে নিন

জ্যোতিষশাস্ত্র মতে, রাশিচক্রে মঙ্গল যদি ষষ্ঠ, অষ্টম এবং দ্বাদশভাব ছাড়া যদি বাকি ভাবে থাকলে মঙ্গল শুভ ফল দান করে। এর মূল অর্থ হল মঙ্গল এই বাকি ভাবগুলিতে অবস্থান করলে ভৌমদোষ বা মাঙ্গলিক দোষের অশুভ ফল দেখা যায় না। জ্যোতিষীদের মতে এমন প্রচুর জাতক জাতিকা আছেন যারা মাঙ্গলিক অর্থাৎ মাঙ্গলিক দোষ থাকা সত্বেও সুখী দাম্পত্য জীবন কাটাচ্ছেন। কোন কোন ভাবে মঙ্গলের অবস্থান থাকলে কোনও রাশির উপর কেমন প্রভাব থাকবে তা জেনে নিন-

আরও পড়ুন- বুধবার সারাদিন কেমন কাটবে আপনার,দেখে নিন আজকের রাশিফল

ধনু ও মীন রাশিতে মঙ্গল অষ্টম ভাবগ্রস্থ হলে মাঙ্গলিক দোষ হয় না। বৃষ ও তুলা রাশির দ্বাদশ স্থানে, মেষ ও বৃশ্চিক রাশির চর্তুথ স্থানে, কর্কট ও মকর রাশির সপ্তমে এবং ধনু ও মীন রাশির অষ্টম স্থানে মঙ্গল অবস্থান করলে ভৌমদোষ বা মাঙ্গলিক দোষ হয় না। মঙ্গল যদি কর্কট, সিংহ, মকর ও কুম্ভে অবস্থিত হয়, সে ক্ষেত্রে মাঙ্গলিক দোষ হয় না। জাতক-জাতিকার লগ্ন, চন্দ্র অথবা শুক্র থেকে মকর প্রথম, দ্বিতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম অথবা দ্বাদশ ভাবে হলে মঙ্গলের কু-প্রভাব পড়বে না। কুম্ভ ও সিংহ রাশিতে মঙ্গলের অবস্থানে ভৌম দোষ হয় না। মিথুন বা কন্যার ঘরে মঙ্গল অবস্থান করলে কোনও ক্ষতি হয় না।