Asianet News BanglaAsianet News Bangla

কেন পালিত হয় অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী, জেনে নিন পুজোর নিয়ম

অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী (Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi) পড়েছে ২২ ডিসেম্বর। ২২ ডিসেম্বর বিকেল ৪.৫২ মিনিটে শুরু হবে তিথি আর ২৩ ডিসেম্বর ৬.২৭ মিনিটে শেষ হবে।

See the history and significant of Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi
Author
Kolkata, First Published Dec 19, 2021, 8:34 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

হিন্দু ধর্মে উল্লেখ রয়েছে একাধিক উৎসবের। উল্লেখ আছে একাধিক পুজো ও ব্রতর। হিন্দু শাস্ত্র অনুসারে এই সকল উৎসবের মধ্যে অন্যতম হল অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী (Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi)। মাঘ মাসের পূর্ণিমা তিথিতে পালিত হয় অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী। এবছর অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী (Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi) পড়েছে ২২ ডিসেম্বর। ২২ ডিসেম্বর বিকেল ৪.৫২ মিনিটে শুরু হবে তিথি আর ২৩ ডিসেম্বর ৬.২৭ মিনিটে শেষ হবে। এদিন ভক্তরা গণেশের মহা গণপতি ও দুর্গা পীঠের পুজো করে। 

সংকষ্টী চতুর্থী (Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi) হল হিন্দু অনুষ্ঠান। এই দিন হিন্দু দেবতা গণেশের পুজো করেন। হিন্দু পঞ্জিকা অনুসারে প্রতি মাসের কৃষ্ণা চতুর্থী তিথিতে এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। এই তিথিটি মঙ্গলবার পড়লে তাকে বলা হয় অঙ্গারকী সংকষ্টী চতুর্থী। তবে, এই ব্রত পালনে জন্য কঠিন উপোস রাখতে হয়। রাতে চন্দ্র দর্শনের পর গণেশের কাছে প্রার্থনা জানিয়ে উপবাস ভাঙতে হয়। ভক্তরা মনে করেন, অঙ্গারকী চতুর্থী তিথিতে পুজো করলে ভক্তদের সকল মনষ্কামনা পূরণ হয়। 

সংকষ্টী মানে কষ্ট থেকে পরিত্রাণ, আর সংকট হারা মানে প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণ। তাই সংকষ্টী চতুর্থীতে, ভক্তরা একটি ভগবানের আশীর্বাদ পেতে সূর্যোদয় থেকে চন্দ্রোদয় পর্যন্ত উপবাস করতে হয়। প্রতি মাসে গণেশকে (Lord Ganesh) পৃথক পৃথক নামে পুজো করা হয়। সংকষ্টী চতুর্থীর পুজোকে সংকষ্টী গণপতি পুজো বলা হয়। এই সংকষ্টী ব্রতে ১৩টি ব্রত আছে। ১২টি ব্রতকথা বছরের ১২ মাসে এক একটিতে পঠিত হয়। শেষ ব্রত কথা মল মাসে পঠিত হয়। এর বৈশিষ্ট্য হল, প্রতি মাসের সংশ্লিষ্ট ব্রতকথাটিই সেই মাসে পাঠ করতে হয়। 
 
অখুরট সংকষ্টী গণেশ চতুর্থী (Akhuratha Sankashti Ganesh Chaturthi) পালন করতে চাইলে, সকালে উঠে স্নান করুন। এবার পরিষ্কার পোশাক পরুন। ঘি-এর প্রদীপ জ্বালান দেবতার সামনে। তারপর, গণেশকে ফুল, বেলপাতা অর্পন করুন। এবার ফল, মিষ্টি দিন। পাঠ করুন সংকষ্টী চতুর্থীর ব্রত। নিষ্ঠার সঙ্গে এই ব্রত পালন করলে সকল সংকট কেটে যাবে। সূর্যাস্তের পর ব্রত ভাঙতে হয়। 

আরও পড়ুন: Daily Horoscope: রবিবার ৪ রাশির শারীরিক সমস্যা বৃদ্ধি পেতে পারে, দেখে নিন আজকের রাশিফল

আরও পড়ুন: Astrological Tips for Loan: ঋণ থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ জ্যোতিষশাস্ত্রীয় উপায়

এছাড়াও, প্রতি শুক্লপক্ষে পালিত ব্রতকে বলে বিনায়ক চতুর্থী (Vinayak Chaturthi)। প্রচলিত আছে, ভক্তদের মনের ইচ্ছে পূরণ করতে শিব-পার্বতী পুত্র গণেশ মর্তে এসেছিলেন। তাই যেকোনও শুভ কাজে যাওযার আগে গণেশের দর্শন করে যেতে বলা হয়। এমনকী, কাজের জায়গায় গণেশ মূর্তি রাখলে সকল কাজে বাধা বিপত্তি কেটে যায়।
 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios