আপনারা কি সদ্য় বিয়ে করেছেন, অথবা আজই বিয়ে। তাহলে শেষমুহূর্তে জেনে নিন, বাস্তুর নিয়ম মেনে নব দম্পতির সেই নিয়মরীতিগুলি। যেগুলি আপনাদের বৈবাহিক জীবনকে আরও রোমান্টিক করে তুলবে।

আরও পড়ুন, কেমন কাটবে মাসের প্রথম সপ্তাহ! দেখে নিন সপ্তাহের রাশিফল


বিয়ের পর, নব দম্পতিরা দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের ঘরটিকে মাস্টার বেড রুম করুন।  দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে লাল বা বাদামি রঙের কোনও কিছু সরিয়ে রাখুন। পারলে হলুদ রঙের বাল্ব জ্বালিয়ে রাখুন।  এভাবেই আপনাদের দাম্পত্য জীবন আরও সুখী করা সম্ভব।  বাস্তুতন্ত্রের মত অনুযায়ী, মাস্টার বেডরুমের খাটটি কাঠের হলে খুব ভাল হয়। লোহা কিংবা অন্য় কোনও ধাতুর তৈরী খাট এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। মাস্টার বেডরুমে কখনোই কাজের কোনও কিছুই রাখবেননা। ক্য়ালকুলেটর, ল্য়াপটপ কিংবা কম্পিউটার কোনও কিছুই বিয়ের পর বেড রুমে রাখবেননা। কাজকে বেড রুমে নিয়ে আসা মানে,  দাম্পত্য কলহ বয়ে নিয়ে আসা। বিয়ের পর,  ঘরে যে বিয়েরই ছবি থাকবে সেটাই তো স্বাভাবিক। তবে হ্য়াঁ ছবি গুলি একটু গুছিয়ে রাখতে হবে। ঘরের পূর্ব দিকের দেওয়ালে ছবি রাখলে দাম্পত্য জীবন আরোও সুন্দর হয়ে ওঠে।  বিয়ের কার্ড ছাপানোর সময় খেয়াল রাখুন, সেটা যেনও কখনই ত্রিকোণাকার না হয়। তাহলে অশুভ শক্তি প্রবেশ করতে পারে আপনাদের দাম্পত্য জীবনে। বিয়ের কার্ডের রঙ কখনও কালো রাখবেননা। 

আরও পড়ুন, প্রাচীন এই সংস্কার বা নিয়মগুলি আজও প্রচলিত, এর মধ্যে কোনটি মেনে চলেন আপনি

বিয়ের পর কখনই বেডরুমে আয়না রাখবেননা, এতে নেগেটিভ শক্তি প্রতিফলিত হয়ে আপনাদের দিকে ফিরে আসে। মাস্টার বেডরুমের সঙ্গে যদি বাথরুম থাকে, তাহলে তার দরজা সবসময় বন্ধ রাখুন। বেডরুমের দরজার কাছাকাছি কোনও আসবাব রাখবেননা। সদ্য় বিবাহিত দম্পতিরা, শোওয়ার ঘরে কখনই শখ হলেও অ্য়াকোরিয়াম রাখবেননা। নব দম্পতিরা অবশ্য়ই টাকা রাখুন আলমারিতে। এতে আপনাদের নব জীবনের আর্থিক ভারসাম্য় রক্ষা হবে।