বিয়ের আসর সেজে উঠেছিল রূপকথার মোড়কে, সেই কথা প্রকাশ্যেই স্বীকার করেছিলেন মিমি চক্রবরতী। এবার কলকাতার বুকে রিসেপশনের আসরে ধরা পরল ভিন্ন লুক। শুধুমাত্র করলকাতার ফ্লেভারকেই তুলে ধরলেন নুসরত জাহান। নিজের রিসেপশনের থিম কেমন হতে তা নিজেই ঠিক করে নেন নুসরত।

জুই ফুলের গন্ধেই ভরে উঠল এদিন রয়্যাল বেঙ্গল। কেন জুই ফুল, প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানিয়েছিলেন কলকাতায় জুই ফুলের যে এক আলাদা মর্যাদা রয়েছে তার কথা মাথায় রেখেই এই পরিকল্পনা করা। কালো সেরওয়ানি ও কালো মেরুন ল্যাহেঙ্গাতেই সলকের নজর কাড়ে নবদম্পতি। 

শ্বশুরবাড়ির গয়নাতেই এই দিন সেজে ওঠে নুসরত। হাতের চুড়িতে লেখা এনযে। লালবাতি, তালপাতার পাখা, সাবেকে বিয়ের অনুষ্ঠানেরই আঙ্গিকে সেজে ওঠা। খাবাররের পদ নিয়ে এবার একটু বেশিই সচেতন ছিলেন তিনি। কারণ সরূপ জানান, বিয়েতে একমাত্র এই বিষয়টিই তার মনের মতন হয়নি। তাই সব খামতি মিটিয়েই রিসেপশনের মেনুতে ঢালাও মাছ, মিষ্টি, মোর। 
মিষ্টি খেতে ভিষণ পচ্ছন্দ করেন নুসরত জাহান। তাই মিষ্টি থাকবে না তার অনুষ্ঠানে এটা অসম্ভব। বসিরহাট থেকে মিষ্টি এলো ট্রাক বোঝাই। বাঙালি থেকে ইতালিয়ান, পদের সম্ভারে জুড়ি মেলা ভার। গানের আসর, আড্ডা, ছবি তোলা, একপ্রকার হুল্লোর করেই কাটল নিখিল নুসরতের গ্রান্ড রিসেপশন।