বয়স মাত্র ২০ বছর। এরই মধ্যে ক্যামেরার সামনে অতিক্রম করা দশ বছর। ছোট থেকেই অভিনয়ের প্রতি ঝোঁক ছিল তার বিস্তর। মাত্র তিন বছর বয়সে প্রথম অভিনয় করা।

ঋদ্ধি সেন-এর বাবা কৌশিক সেন-এর ইচ্ছেতেই তার অভিনয়ে হাতেখড়ি। থিয়েটরের মঞ্চেই তার অভিনয়ের ব্যাকরণ শেখা। থিয়েটর সংস্থা স্বপ্নসন্ধানীর সঙ্গে আজও ঋদ্ধি যুক্ত। এরপর বড়পর্দায় সকলের নজরে আসা ইতি মৃণালিনী ছবির মধ্যে দিয়ে। কাহিনী ছবিতেও তাকে দেখা যায় এক বিশেষ ভূমিকায়, পল্টু, চাওয়ালার ভূমিকায় হলেও এটিই ছিল তার প্রথম বলিউডে পা রাখা।

চিরদিনই তুমি যে আমার ২ ছবিতে ২০১৪ সালে তাকে দর্শক পেলেও নিজের পরিচিতি তৈরি করে ঋদ্ধি ওপেনটি বাইস্কোপ ছবির মধ্যে দিয়ে। ওই একই বছরে মুক্তি পেয়েছিল এই ছবি। অন্বদ্য অভিনয়ে নজর কেড়ে ছিল ঋদ্ধি সকলের। নিজের চরিত্র নিয়ে কাটা ছেঁড়া করে তা পর্দায় উপস্থাপন করতে কতটা পারদর্শী ঋদ্ধি এই ছবির মধ্যে দিয়েই তা প্রকাশ্যে আসে সকলের।

এরপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি। বহু ছবির মাঝে ঋদ্ধিকে নিজের এক বিশেষ পরিচিতি তৈরি করতে সাহায্য করেছে সমান্তরাল, হেলকপ্টার এলা, নগরকীর্তণ এবং ভিঞ্চি দা। সমান্তরালে সমান তালে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে টক্কর দিয়ে অভিনয় করে গেছেন ঋদ্ধি, ছাড়েনি একচুল জমিও।

হেলিকপ্টার এলায় কালজের পুত্রের ভূমিকায় অভিনয় করে ঋদ্ধি। বলিউডে মুখ্যভূমিকায় এটিই ছিল তার প্রথম ডেবিউ। অপরদিকে এই দশ বছরের কেরিয়ারে তার সবথেকে বড় প্রাপ্তী জাতীয় পুরষ্কার। কৌশিক গাঙ্গুলী পরিচালিত নগরকীর্তণ ছবিতে অভিনয় করে এই পুরষ্কার উঠে আসে তার শীরে।

আজ জন্মদিনে প্রজেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ঋদ্ধির ছবি শেয়ার করে শুভেচ্ছা জানালেন তাকে। কিছুদিন আগেই মুক্তি প্রাপ্ত ছবি ভিঞ্চি দা-তে এক বিশেষ অংশে অভিনয় করে প্রশংসা পেয়েছিল ঋদ্ধি। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ও ঐঅংশ দেখে সাধুবাদ জানিয়েছিলেন ঋদ্ধিকে।