বুধবার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পরই নন্দীগ্রামে ফিরে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে বেশ কিছু কাজ ছিল যা, একে একে শেষ করছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনই সময় সামনে উঠে আসে ভয়ানক খবর, মুখ্যমন্ত্রী পাসহ শরীরের বেশ কিছু অংশে চোট পেয়েছেন। তাঁকে একাই নিজের পায়ে বরফ ঘষতে দেখা যায়। 

আরও পড়ুন- কলকাতায় ফেরার উপায় ছিল না, নিঃস্ব হয়ে আত্মহত্যার পথেই হাঁটতে চেয়েছিলেন মিঠুন

এরপর তাঁকে গাড়িতে তুলে আনলে অসহ্য যন্ত্রণায় গায়ে আসে জ্বর। গ্রিন করিডর করে তাঁকে নিয়ে আসা হয় কলকাতায়। ভর্তি করা হয় এসএসকেএম-এর ভিভিআইপি কেবিনে। সেখানেই তখন উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। 

আরও পড়ুন- 'বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়', মুখ্যমন্ত্রীর আরোগ্য কামনায় টলিউড সেলেব

কিছুক্ষণের মধ্যেই মমতাকে দেখতে আসেন রাজ্যপাল। এরপর শুরু হয় চিকিৎসা। প্রাথমিকভাবে করানো হয়েছিল এক্সে আর ইসিজি। এক্সে-তে হাড় ভাঙা পাওয়া যায়নি, তবে পেশিতে চোট আছে বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর। পাশাপাশি শরীরের আরও বিভিন্ন জায়গাতে চোট আছে বলে ডাক্তারের পক্ষ থেকে এদিন জানানো হয়। মুখ্যমন্ত্রীর চিকিৎসার জন্য সাত জনের এক মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়।  হাসপাতাল সূত্রের খবর মুখ্যমন্ত্রীর বাঁ পায়ের পাতায় ও গোড়ালিতে চিড় পাওয়া গিয়েছে। ৪৮ ঘণ্টা ধরে রাখা হবে পর্যবেক্ষণে। 

 

 

খবর পাওয়া মাত্রই সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক পোসস্টে ভরতে থাকে, টলিউডে সেলেবরা তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন। সেই তালিকা থেকে বাদ পড়েননি দুই সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ও নুসরত জাহান। এদিন নুসরত লেখেনে- তীব্র প্রতিবাদ করছি, যারা এই কাজ করেছেন। তোমরা হয়তো দিদিকে আঘাত করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু দেনে রেখো দিদি সর্বদা ঘুরে দাঁড়িয়েছেন। আমি তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। 

 

 

পাশাপাশি একইভাবে টুইট করেন মিমি চক্রবর্তী। তিনিও লেখেন যে- তারাতারি সুস্থ হয়ে উঠুন দিদি, গোটা বাংলা আপনার জন্য প্রার্থনা করছে।