২০২০-র শেষের কয়েকটা দিন থেকেই দুবাইতে কাটাচ্ছেন মিমি চক্রবর্তী। সাংসদ-অভিনেত্রী মিমির ছুটি কাটানোয় মন মজেছে ভক্তমহলের। দুবাইয়ের মনোরম পরিবেশে লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের দুনিয়া ভুলে মন্ত্রমুগ্ধ হয়েছেন তিনি। রাজনীতি ও বিনোদনের মহল ছেড়ে এখন তিনি সুফিয়ানায় মত্ত। দুবাইয়ের আভিজাত হোটেল, সমুদ্রসৈকত, রাস্তার ভিডিও, ছবি পোস্ট করে চলেছেন মিমি। অভিনেত্রীর দুবাই ডায়রিজই এখন নেটদুনিয়ার হটকেক। 

মিমি চক্রবর্তীর দুবাই ভ্রমণের আরও বেশ কয়েকটি ভিডিও এ ছবি শেয়ার করে চলেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। মনোরম পরিবেশে দুবাইয়ের ফাইভ স্টার হোটেল, মরুভূমি, সমুদ্রসৈকতে মজেছেন মিমি। মিমির দুবাই অ্যালবামে যখন নেটবাসীদের মন ভরেছে সেখানে নিন্দুকেরা ছুটে এল অভিযোগ নিয়ে। সাংসদ হয়ে বিদেশভ্রমণে ব্যস্ত মিমি। কেন নিজের দায়িত্ব পালন করছেন না শহরে থেকে। ব্যক্তিগত জীবন ও পেশাগত জীবন গুলিয়ে ফেললে বোধহয় এমনটাই হয়। যদিও ভক্তরা একহাত নিয়েছে সেই নেটিজেনদের। 

আরও পড়ুনঃরঙবেরঙের জগতে মনামীর জাদু, মিনি ড্রেসে মুম্বই নগরী কাঁপাচ্ছেন বঙ্গতনয়া

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Mimi (@mimichakraborty)

 

মিমির নানা পোস্টেই মাঝে মধ্যে ধেয়ে আসে নিন্দুকেরা। সেই নেটবাসী লিখেছে, "আপনি কি সাংসদ। একেবারেই না। একজন সাংসদের নিজের দায়িত্ব পালন করা উচিত। সেখানে আপনি দুবাইয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।" সাংসদ বলে কি বিদেশভ্রমণেও বাধা। নিন্দুকের মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলছে ভক্তরা। এই প্রথমবার অবশ্য নয়। মিমি এবং নুসরতের যেকোনও পোস্টেই হঠাৎই এই অভিযোগের বৃষ্টি শুরু হয়। যদিও এই মন্তব্যের কোনও জবাব দেন না তাঁরা। এই ধরণের অভিযোগ এড়িয়ে যাওয়াই শ্রেয় মনে করেন তাঁরা।