বৃহস্পতিবার কলকাতার বুকে পাঁচ তারা হোটেল সেজে উঠল আলোর রসনাইতে। সময় যতই এগোতে থাকে ততই প্রস্তুতির পারদ চরতে থাকে। সন্ধে ৬টায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আসার খবরেই পাল্টে যায় হোটেলের স্বাভাবিক চিত্র। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে নেমে পরেন সকলেই। অবশেষে সন্ধে সাড়ে ছটায় দেখা মেলে নব দম্পতির। 

মুখ্যমন্ত্রীকে সঙ্গে নিয়েই নুসরত ও নিখিল প্রবেশ করেন অনুষ্ঠান চত্বরে। বৃহস্পতিবার রথ উপলক্ষ্যে ইস্কনে নুসরত ও নিখিলের সঙ্গে একই ফ্রেমে ধরা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিকেল গড়াতে না গড়তেই প্রতিশ্রুতি পালনে তিনি হাজির হয়েছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রথম ও প্রধান অতিথি হিসেবে এদিন আসন গ্রহণ করেছিলেন মুখ্যামন্ত্রী। তবে বেশিক্ষণ নয়, আধঘন্টা থাকারপরই বেড়িয়ে যান তিনি। তাদের সঙ্গেই অনুষ্ঠানে যোগ দেন মিমি চক্রবর্তীও। 

নিজের রিসেপশনের আসরে প্রবেশ করার আগেই সংবাদ মাধ্যমের মখোমুখি হয়েছিলেন নিখিল ও নুসরত। জানালেন তাদের প্রতিক্রিয়া। রিস্পশনের দিন প্রেম ভালোবাসার কথাই হক, বলেই শুরু করেছিলেন কথপোকথন। তিনি জানিয়েছিলেন, সব মেয়েরাই নিজের বিয়েকে নিয়ে যতটা উত্তেজিত থাকে আমিও ততটাই উত্তেজিত। সারাজীবন যেন এভাবেই ভালো থাকতে পারি।  অন্যদিকে নিখিলেরও মুখে একই কথা, নুসরতকে পেয়ে তিনিও খুব খুশি। সকলের আশির্বাদ নিয়েই তারা নতুন জীবন শুরু করলেন। এরপরই একে একে অতিথি আসার পালা শুরু হয়। মিমি চক্রবর্তী হাজারও দায়িত্ব নিয়ে বেজায় ব্যস্ততার মধ্যেই কাটালেন বনুয়ার রিসেপশন।