টেলি অভিনেত্রী শ্রীমা ভট্টাচার্যের রূপ এবং গুণে বরাবারই মুগ্ধ ভক্তরা। তাঁকে সম্প্রতি নিজের সেলফি আপলোড করতে দেখে আর নিজেদের সামলাতে পারেনি অনুরাগীরা। 'বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না' ধারাবাহিকের সেট থেকে তোলা সেলফিতে কুপোকাত দর্শকমহল। তাঁর থেকে এমন অনেক ছবির আশায় বসে থাকে তাঁর ভক্তরা। তিনিও অবশ্য ফ্যানদের হতাশ করেন না। প্রায় নিত্যদিন নতুন কোনও পোস্ট। প্রসঙ্গত, লকডাউনে শ্রীমা ভক্তদের যেভাবে বিনোদনের জোগান দিয়েছেন তা অবিস্মরণীয়। 

লকডাউনে অতিষ্ট হয়ে উঠলেও কারও কারও বেশ সুবিধা হয়েছিল। অজান্তেই আনন্দের মুহূর্ত চলে এসেছে তাঁদের জীবনে। যেমন অভিনেতা-অভিনেত্রীরা এখন শ্যুটিং ছেড়ে বাড়িতে বসে সাধারণ মানুষের মতই। এই ফাঁকে পরিবারের সঙ্গে কোয়্যালিটি টাইম কাটানোর সুযোগ পেয়ে গিয়েছিলেন সকলে। তেমন শ্রীমাতাঁর মা-বাবার সঙ্গে একান্তে সময় কাটাচ্ছেন বাড়িতে। কখনও বৃষ্টিতে ভিজে তো কখনও মায়ের সাহায্যে রান্না শিখে, লকডাউনে বেশ সুবিধাই হয়েছে শ্রীমার। তবে লকডাউনের জেরে একটু অসুবিধা হয়েছে বইকি। মিস করছিলেন প্রেমিককে। গৌরব রায় চৌধুরি, তৃনয়নী ধারাবাহিকের হিরো গৌরব। 

 

 

শ্রীমার সঙ্গে বেশ কয়েকদিন ধরেই সম্পর্ক তাঁর। হোলির সময় একসঙ্গে ভিডিও পোস্ট করে তাক লাগিয়েছিলেন তাঁরা। লকডাউনের কারণে গৌরবের সঙ্গে দেখা হচ্ছে না শ্রীমার। এই কারণে একটি বড়ো চিঠি লিখে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন শ্রীমা। অন্যদিকে কবিতা ও গল্প বলতে ভালবাসেন। লকডাউনে টিকটক ভিডিও করা, রান্না করা ছাডা়ও নিজের অন্যরূপ তুলে ধরলেন শ্রীমা। কবিতা আবৃত্তি করে শুনিয়েছেন নিজেদের ভক্তদের। শ্রীমার এই গুণে মুগ্ধ নেটিজেনরা। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা শিশু ভোলানাথ কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত ইচ্ছামতী কবিতাটি আবৃত্তি করে শুনিয়েছিলেন অভিনেত্রী। বই পড়া, গল্প লেখা এগুলোও রয়েছে শ্রীমার প্রতিভার তালিকায়।