রাজ-শুভশ্রীর ছোট্ট খুদে ইউভানের আজ মুখেভাত। কয়েকদিন ধরেই প্রস্তুতি তু্ঙ্গে। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে অন্নপ্রাশনের অনুষ্ঠান। অতিথিরা চলে এসেছেন প্রায় সকলেই। তবে খাস কলকাতায় নয়, শহর ছেড়ে নিজের পুরোনো জায়গা হালিশহরের বাংলাতেই পৌঁছে গেছেন রাজ-শুভশ্রী থেকে পরিবার, বন্ধু-বান্ধব সকলেই। সদ্যই ৫ মাসে পা দিল ইউভান। তার উপর গতকালই আবার বাবা পড়েছে ৪৫-এ । সব মিলিয়ে একেবারে গ্র্যান্ড সেলিব্রেশনের আয়োজন রাজের।

 

 

শনিবার রাত থেকেই পরিচালকের জন্মদিন ঘিরে হৈ হৈ কান্ড। ঘড়ির কাঁটা ১২ টা পেরোতেই ঠোঁট ঠোঁট রেখে আদুরে চুম্বনে ভরিয়ে দিয়েছেন শুভশ্রী। মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়েছে ভালবাসার মুহূ্র্ত। জন্মদিনের রেশ কাটতে না কাটতেই  ইউভানের অন্নপ্রাশন। হালিশহরের বাংলাতেই সকাল থেকে চলছে জোরকদমে প্রস্তুতি।  নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় ডেস্টিনেশন মুখেভাতের ভিডিও শেয়ার করেছেন ইউভানের মাম্মা শুভশ্রী।

 

 

হলুদ-কমলা গাঁদার মালায় সেজে উঠেছে গোটা বাড়ি। সাদা ও বাসন্তী রঙের কাপড়ে সাজানো হয়েছে খাওয়ার জায়গা। একসঙ্গে অতিথিরা বসে খাবার খাচ্ছেন। একদিকে পাঠার মাংস ফুটছে অন্যদিকে ১৫০ কেজি ওজনের বাড়ির পুকুরের কাতলা মাছ দিয়েই চলছে অতিথি অ্যাপায়ন। দাদুর হাতেই প্রথমবার ভাত এল ইউভান। সমস্ত আচার বিধি মেনেই পালিত হয় ইউভানের অন্নপ্রাশন।

 

 রাজস্থানী স্টাইলে তাবু বানিয়ে বসার জায়গাও করা হয়েছে। যেখানে স্পট বুফে সিস্টেমে খাওয়ানোর ব্যবস্থা থাকছে। পাশাপাশি থিম অনুষ্ঠানে হলুদ রংকেই যে বেছে নিয়েছেন রাজ-শুভশ্রী তাও বেশ স্পষ্ট।  মুহূর্তের মধ্যে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

 


রাউডি বেবি থেকে টলিপাড়ার তৈমুর জন্মের পর থেকে টলিপাড়ার তাবড় তাবড় সেলেবদের তুড়ি মেড়ে টেক্কা দিচ্ছে রাজ-শুভশ্রীর ছোট্ট খুদে ইউভান। জন্মানোর পর থেকেই তারকা পুত্রকে নিয়ে হইচই-এর শেষ নেই। ইতিমধ্যেই বলিউডের তৈমুরের সঙ্গেও তার তুলনা হামেশাই করছে নেটিজেনরা। একাধিক পরিচিতিও হয়েছে রাজ পুত্রর। মাত্র পাঁচ মাসের মধ্যেই  তার আদবকায়দা সকলের মন ছুঁয়ে গেছে। যদিও এখনও অনেক বাকি আছে। 'অভি তো পার্টি শুরু হুই হ্যায়' -মুডে রয়েছে রাজ-শুভশ্রী-ইউভান।