প্রত্যেক বাঙালিই ভোর রাত থাকতেই উঠে পড়েন মহালয়ার দিন।অনেকের আবার তো ঠিক করে ঘুমই হয়না ,ভোরের অপেক্ষাতেই রাত কেটে যায়।কখন যে দেবী দুর্গা
অসুরকে নিধন করবেন,তারপরেই  যেনও সব বাঙালি শান্ত হয়। তবে এবারের মহালয়ায়, দেবীপক্ষের শুরুতেই বাঙালি পেল উপরি পাওনা।মহালয়ার দিনই মুক্তি পেল,পাভেল পরিচালিত 'অসুর' ছবির টিজার।  

কিছুদিন আগেই প্রকাশ্যে এসেছিল 'অসুর' ছবির ফার্স্ট লুক।তখন অনেকেই  জিতের লুক দেখে রীতিমতো অবাক হয়েছিলেন।মনে এসেছিল প্রশ্ন। আর সেই সব প্রশ্নের উত্তর মিলল এবার,মহালয়ায় এই ছবির টিজার মুক্তির পর। কিছু মানুষ অন্যদের থেকে অনেক আগেই যেনও ভবিষ্যতকে দেখে ফেলেন।  তারা যে সব সময় জ্যোতির্বিদ বা সাধক হবেন এমন তো কোনও কথা নেই। তারা শিল্পী হতে পারেন।যাদের অনুভূতি শক্তি অন্যদের থেকেও অনেক বেশি।তবে হ্যা,এই বিশেষ গুনগুলি যাদের থাকে,তারা হয়তো সবার দৃষ্টিতে একটু অস্বাভাবিক হয়ে থাকেন।আর এরকমই একজনের চরিত্রে অভিনয় করছেন জিত।মুলত 'অসুর' ছবি হল - কিগন, বোধি, ও অদিতি নামে তিনজন বন্ধুর গল্প। যাদের ভূমিকায় অভিনয় করছেন,জিৎ ,আবির ও নুসরত। 
     
একটি সাক্ষাতকারে পাভেল জানিয়েছেন এই ছবির মাধ্যমে,ভারতের চিত্রকলা ও স্থাপত্যের অন্যতম কিংবদন্তি রামকিঙ্কর বেইজকে সম্মান জানাতে চান। এই ছবির চিত্রনাট্য নিয়ে তিনি অনেক খেটেছেন।তাই বহু ব্যস্ততার মধ্যেও সবাই  স্ক্রিপ্ট পড়ে রাজি হলেন। আর তারপরেই অগাস্ট মাসেই শুরু হয়েছিল পাভেলের পরিচালনায় এই ছবির শুটিং। বোলপুর এবং কলকাতা জুড়ে এই ছবির শুটিং হয়েছে।এর আগে জিতের সঙ্গে 'বাচ্চা শ্বশুর' ছবিতে কাজ করেছেন পাভেল।তখন চিত্রনাট্যের দায়িত্ব ছিলেন পাভেল। আর তখন থেকেই তৈরি হচ্ছিল একটু একটু করে 'অসুর'- ছবির প্লট।'অসুর' ছবির সঙ্গীতপরিচালনা করছেন  ইশান,অমিত ও নচিকেতা । 
 
তবে আর বেশিদিন অপেক্ষা নয়। নির্মাতারা জানিয়েছেন ,বছর শেষে শীতের শুরুতেই মুক্তি পাবে বাংলা ছবি 'অসুর'।