করোনা আবহেও জর দকমে শ্যুটিং মধুমিতা সরকারের। একটি বিজ্ঞাপনের ভিডিওতে সেই আইডিয়া নিয়ে প্রকাশ্যে এলেন অভিনেত্রী। যেখানে তিনি কেবল এই দেখালেন ভীড় ঠেলে আর রাস্তাঘাটে শপিং নয়। করোনা থেকে বাঁচতে চলবে অনলাইন শপিং। প্রসঙ্গত, মধুমিতার জীবন এবং শরীর জুড়ে এখন কেবল প্রেমেরই আনাগোনা। এমনটা তিনি নিজেই বললেন ছবি আপলোড করে। ক্যাপশনে লিখেছেন লাভ ইজ ইন দ্য হেয়ার। প্রেমের ছোঁয়া তাঁর সিল্কি চুলেই। তাঁর স্লো মোশনের প্রেমে পড়েছিল গোটা সাইবারদুনিয়া। 

একটি ভিডিও আপলোড করতেই ভিড় জমেছিল ভক্তদের। মধুমিতার ফিগারের প্রশংসা যত করা হয় ততই কম। শরীরে এক ফোটাও অতিরিক্ত মেদ কীকরে নেই তাঁর। কীভাবে লকডাউনের পরও এমন স্লিম ট্রিম করে ধরে রেখেছেন তিনি। প্রশ্ন সকল ভক্তদের। এখানে উত্তর একটাই। শরীরচর্চা এবং সঠিক খাবার। সাদা পোশাকে তাঁর স্নিগ্ধতায় মুগ্ধ হল দর্শকমহল। শরীরচর্চার পাশাপাশি তাঁর গ্ল্যামারেরও কনও তুলনা হয় না। সেই গ্ল্যামারাস ভিডিও আসে প্রকাশ্যে। 
 

 

কীভাবে নিজেকে টলিউড থেকে সোজা হলিউডি গ্ল্যামারে নিয়ে গেলেন এই হল সকলের প্রশ্ন। দিন কতক আগে নীল রঙের পোশাকে সেজে উঠেছিলেন মধুমিতা। ছবি দেখলেই মনে পড়ে গিয়েছিল, "নীল রঙ ছিল ভীষণ প্রিয়" গানটির কথা। রূপম ইসলামের এই গান ডেডিকেট করেই চলছে প্রেম নিবেদন। আপাতত হ্যাপিলি সিঙ্গেল মধুমিতা সরকার। তাঁর জীবনে কি কেউ আছেন সেই নিয়ে নানা মুণির নানা মত। কারও কথায় মধুমিতা যা সুন্দরী তাতে তাঁর সিঙ্গেল থাকাটাই বেশ সন্দেহজনক। এদিকে তাঁর ভক্তদের কথায় মধুমিতা সম্পর্কে যাক বা সিঙ্গেল থাকুক তাঁদের কাছে মধুমিতার কাজই গুরুত্ব পায়।