নাগরিকত্ব, নাগরিকপঞ্জি  নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই নানা তরজা চলে আসছে। এনআরসি, সিএএ নিয়ে ফের অগ্নিগর্ভ দিল্লি।  গতকাল সকাল থেকে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে  বাধে। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে পাথরবৃষ্টি। মোটরসাইকেল থেকে বিভিন্ন জিনিস জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের ব়্যাপিড ফোর্স আসে ঘটনাস্থালে। এছাড়া উদ্ধার করা হয় কার্তুজের খোলাও।

আরও পড়ুন-'ট্রাম্পের সফরকালেই রাজধানী দিল্লি অগ্নিগর্ভ', বলিউডের নিশানায় আপ প্রশাসন...


এই  অবস্থায় ফ্ল্যাগ মার্চ চালায় পুলিশ। শেষ তিন দিনের মধ্যে  মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩। উত্তপ্ত এই পরিস্থিতি আনতে নিজের বাড়িতেই স্থানীয় বিধায়ক ও আধিকারিকদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেছন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াস। সিএএ, এনআরসি নিয়ে সরব হয়েছিলেন প্রত্যেকেই। বুদ্ধিজীবি মহলের একাংশ এই নিয়ে আওয়াজ তুললেও শেষমেষ কোনও লাভ হয়নি। বলিউডেও অনুরাগ থেকে স্বরা আওয়াজ তুললেও সেখানেও একই অবস্থা। বাদ পড়েনি টলিউড। উত্তপ্ত এই পরিস্থিতিতে রবিঠাকুরেই ভরসা রেখেছেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়।

 

আরও পড়ুন-টুইট বির্তকে করণ জোহরের 'তখত', বয়কটের ডাক সোশ্যাল মিডিয়ায়...

 

 

আরও পড়ুন-গসিপ কুইন কঙ্গনার সঙ্গে পরকীয়ায় মত্ত অজয়, জানতে পেরে যা করলেন কাজল...

ইতিমধ্যেই ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বন্ধ রাখা হয়েছে একাধিক স্কুল। এমনকী সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করায় মেট্রো স্টেশনও বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। আর কতদিন ধরে চলবে এই অবস্থা তা কারোরই জানা নেই। ঘটনার উদ্বেগ প্রকাশ করে বিনোদন জগতের একাংশরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।  পরিচালক সৃজিতও কবিগুরুর  গান দিয়ে শান্তির বার্তা দিয়েছেন, 'অহরহ তব আহ্বান প্রচারিত, শুনি তব উদার বাণী হিন্দু বৌদ্ধ শিখ জৈন পারসিক মুসলমান খৃস্টানী পূরব পশ্চিম আসে তব সিংহাসন-পাশে
প্রেমহার হয় গাঁথা। জনগণ-ঐক্য-বিধায়ক জয় হে ভারতভাগ্যবিধাতা! জয় হে, জয় হে, জয় হে, জয় জয় জয় জয় হে।।'