সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে কাটাছেড়া অব্যাহত। সোশ্যাল মিডিয়া নয়তো ব্যক্তিগত জীবনের কথোপকথনে। এরই মাঝে চলচ্চিত্র সমালোচক কমল নাহটা দুইটি পোস্ট বিতর্কের মাত্রাকে বাড়িয়ে দিয়েছে। এই দুটি পোস্ট-ই করা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে নিয়ে। সুশান্ত সিং রাজপুতের শেষ লিভ-ইন পার্টনার ছিলেন অভিনেত্রী। এমনও শোনা যাচ্ছে যে দুই জনেই বিয়ের বিষয়ে একটা সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন। সুশান্তের মানসিক অবসাদের বিষয়টি পুরোটাই জানতেন রিয়া। কিন্তু, কেন আচমকা সুশান্তের বাড়ি ছেড়ে রিয়া চলে যান? এই নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠছে। এমনকী, রিয়ার বিরুদ্ধে আঙুল তুলেছেন নেটিজেনদের একাংশ। আসলে সুশান্ত সিং রাজপুতের মর্মান্তিক পরিণতি এক চরম বিশৃঙ্খলা তৈরি করেছে বলিউডে। যে যখন পারছে একে অপরের দিকে আঙুল তুলছেন। এর পুরোটাই যে সত্যের উপর ভিত্তি করে এমনটা নয়। অভিযোগ, ব্যক্তিগত শত্রুতা মেটানোর জন্যও অনেকে এখন বলিউডের বহু চরিত্রকে আক্রমণ করছে। এর পিছনে রয়েছে বলিউডের প্রবল নোংরা রাজনীতিও। যাতে বারবার নাম জড়িয়েছে করণ জোহর থেকে শুরু করে চোপড়া প্রোডাকশন, তিন খান, সাজিদ নাদিওয়ালাদের নাম। এহেন এক জটিল পরিস্থিতিতে চলচ্চিত্র সমালোচক কমল নাহটা-র ভিডিও পোস্টে রিয়ার পক্ষে সওয়াল করে সুশান্তকে চূড়ান্ত মানসিক রোগী বলে পরিচয় দেওয়াটা অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। এমন মতামত ব্যক্তকারিদের দলে রয়েছেন মনোজ বাজপেয়ী ও অমিত সাধ। দুজনেই বলিউডের নামী তারকা। মনোজও সুশান্তের সঙ্গে কাজ করেছেন। অমিতও সুশান্তের সঙ্গে কাই-পো-চে-র অন্যতম নায়ক ছিলেন। 

আরও পড়ুনঃ'সুশান্তকে জোর করে অবসাদের ওষুধ খাওয়ানো হত, মহেশ ভাট ও ডাক্তার মিলে খুন করেছেন' 

মনোজ বাজপেয়ী ও অমিত সাধ - দুই জনেই কমলের এহেন ভিডিও পোস্ট-কে সমর্থন করতে পারেননি। যেভাবে রিয়া ও সুশান্তের সম্পর্ক নিয়ে একের পর ভিডিও পোস্ট করে চলেছেন কমল, তাতে পক্ষান্তরে সুশান্তকেই দায়ী করা হয়েছে বলে মনে করছেন তাঁরা। বলিউডের প্রতিভাবান অভিনেতার মর্মান্তিক পরিণতির পর থেকে কম কাটাছেঁড়া হচ্ছে না। সুশান্ত মানসিকভাবে কতটা অসুস্থ ছিলেন তা বারবার তুলে ধরা হচ্ছে। এই বিষয়গুলোকে মেনে নিতে পারছেন না সুশান্তের গুণগ্রাহী এবং বন্ধুমহল। কমলও একইভাবে অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর ইমেজকে রক্ষা করতে গিয়ে সুশান্তকে এক অসুস্থ রোগী বানিয়ে দিয়েছেন। যার জীবন নিয়ে কোনও আশাই ছিল না বলে প্রতিপন্ন হচ্ছে কমলের ভিডিওতে। কমলের এহেন আচরণে ক্ষুব্ধ মনোজ ও অমিতের আর্জি দয়া করে এসব বন্ধ হোক। ক্ষুব্ধ অমিত কমলকে টুইটারকে আনফলোও করে দিয়েছেন। 

আরও পড়ুনঃ'যেতে চাইনি কফি উইথ করণে, অনুষ্কা আর আমি ভেবেছিলাম করণের অনুষ্ঠান বয়কট করব'

You saw the first part of Truth Series on Sushant Singh Rajput’s unfortunate suicide. Now, in Part 2, watch the heart-wrenching story of Sushant and the girl who hasn’t uttered a word after his suicide. Right here! 📽️🔗👉 https://t.co/YZ8mVqEB8H 👈#RIPSushant @itsSSR @Tweet2Rhea pic.twitter.com/HkzwAg1DPA

— Komal Nahta (@KomalNahta) June 18, 2020

এদিকে রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে বিহারের এক আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সুশান্ত সিং রাজপুতকে মানসিক এবং আর্থিক শোষণের অভিযোগ আনা হয়েছে রিয়ার বিরুদ্ধে। বিহারের আদালতে রিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন মুজফ্ফরপুরের পাটাহির বাসিন্দা কুন্দন কুমার। চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুকেশ কুমারের কাছে পিটিশন ফাইল করেছেন কুন্দন। মামলার শুনানি হবে চলতি মাসের ২৪ তারিখে। পাটনার ছেলে সুশান্ত। তাঁকে নিয়ে আবেগে ভাসছে বিহার। তাঁর হঠাৎ আত্মহত্যায় চলে যাওয়া মেনে নিতে চাইছে না কেউই। যার জেরেই এই আইনি পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন কুন্দন।  সুশান্তের সাইকোলজিস্টের দেওয়া সাক্ষাৎকারের উপর ভিত্তি করেই রিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। রিয়ার বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধি অনুযায়ী, ৩০৬, ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।

রিয়া চক্রবর্তীকে ইতিমধ্যেই আট ঘন্টা ধরে জেরা করেছে মুম্বই পুলিশ। আরও চোদ্দো জনের বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, সলমন খান, করণ জোহার, সঞ্জয় লীলা বনশালী, একতা কাপুর, আদিত্য় চোপড়া-সহ ছয়জন বলিউড পরিচালক ও প্রোযোজকের বিরুদ্ধেও মামলা দায়ের করা হয়েছে। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পিছনে এরাই দায়ী বলে দাবি করে আইনজীবি সুধীর কুমার ওঝা এই মামলা দায়ের করেছেন। মজফ্ফরপুরের সিজেএম আদালতে এই মামলা দায়ের করেছেন সুধীর। এই মামলাার শুনানি হবে ৩ জুলাই। সুধীর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৩০৬ ধারা মানে আত্মহত্যায় প্রোরোচনা দেওয়া, ১০৯ ও ৫০৪ মানে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে অপমান করা এবং ৫০৬ মানে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনেছেন। এই মামলায় সাক্ষীদের তালিকায় ১৪ জনের নাম দিয়েছেন সুধীর। যারমধ্যে অভিনেত্রী কঙ্গণা রানাওয়াতেরও নাম রয়েছে।