ঋষি কাপুরের প্রয়াণে ভেঙে পড়লেন আশা ভোসলে। তাঁর হাতের রান্না খেতে ভিযণ পছন্দ করতেন ঋষি। জানিয়েছিলেন, সুস্থ হয়ে আবার আসবেন খেতে। কিন্তু শেষ ইচ্ছে পূরণের সময়টাই দিলেন না ঋষি কাপুর। খবর পাওয়া মাত্র শোকাহত আশা জানালেন-

আরও পড়ুনঃ 'সে চলে গেল', ঋষি কাপুরের মৃত্যু সংবাদে ভেঙে পড়লেন অমিতাভ

'ঋষি কাপুর একজন অভিনেতা নয়, খুব ভালো বন্ধু ছিলেন। খুব ছোট থেকে চিনি ওকে। খুবই সুন্দর হাসিখুশি দুষ্ট একটা বাচ্চা। সেখান থেকে বেড়ে ওঠা, রাজকাপুরের সঙ্গে কাজ করতে শুরু করার সময় বাড়িতে যাতায়াত হত, বলতে গেলে নিজের ছেলের মতই দেখতাম ঋষিকে। যখনই সময় হত আমার বাড়িতে আসত, আমার হাতের রান্না খাবে বলে। আমার রান্না করা বিরিয়ানি ও ডাল ওর খুব পছন্দের ছিল।'

'আমার ছেলে মেয়ের সঙ্গে সচারচর ঋষির দেখা হত না, কিন্তু যখনই আমার বাড়িতে আসত তখনই ওদের খোঁজ নিতে ভুলত না, ওরা কী করছে, কোথায় আছে, কেমন আছে...। ও যে ঋষি কাপুর, ও ববলিউডের মহান স্টার, তা কোনও দিনও আমাকে বুঝতে দেয়নি, ওর অসুস্থ হওয়ার পর থেকেই খোঁজ খবর নিয়েছি, ও আমাকে ফোনও করেছে কথাও হয়েছে। বারবার বলেছিলাম সাবধানে থাকতে, ওর শরীরের যত্ন নিতে।'

'অসুস্থ থাকা অবস্থাতে ও বলেছিল বিয়িয়ানি থেকে আসবে, সেটা আর হল না। ওর ছেলে রণবীর নীতু প্রত্যেকের সঙ্গেই আমার নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে , কথাও হয়। বলতে গেলে আমি আজ আমার পরিবারের এক ছেলেকে হারালাম, এ ক্ষতি আমার বা কাপুর পরিবারের নয়, এটা ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের এক বড় ক্ষতি।'