সদ্যই মুক্তি পেয়েছে দীপিকা পাড়ুকোন অভিনীত ছবি 'ছপাক'। অ্যাসিড আক্রান্ত লক্ষ্মী আগরওয়ালের জীবনী পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন দীপিকা। এই ছবির হাত ধরেই প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটেছে দীপিকার। অ্যাসিড যদি বিক্রি না হত, তাহলে আক্রান্ত হওয়ার কোনও প্রশ্নই থাকত না। এই বার্তাই দেওয়া হয়েছিল সিনেমায়। সেই সিনেমার পরই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজধানীর রাস্তায় স্টিং অপারেশনে নামলেন খোদ দীপিকা। আর তার ফলাফল দেখে চক্ষু চড়কগাছ। মাত্র একদিনের অভিযান, আর তাতেই হাতে পেলেন ২৪ বোতল অ্যাসিড। এবং যা খুব সহজেই হাতের নাগালে পেয়ে গেলেন দীপিকার গোটা টিম।

আরও পড়ুুন-বর্ষ শুরুতেই বাজিমাত, ১০০ ছবিতে ১০০ কোটির ক্লাবে অজয়...

রাজধানীর মতো প্রকাশ্যে রাস্তায় সহজেই  বিক্রি হচ্ছে অ্যাসিড। কেউ ছাত্র সেজে, কেউ মিস্ত্রী সেজে, কেউ বা স্টুডেন্ট সেজেই কোনও পরিচয়পত্র ছাড়াই দেদার অ্যাসিড বিক্রি করা হচ্ছে। নিজের টিমকে নানা দোকানে পাঠিয়েছিলেন দীপিকা। আর নিজের গাড়িতে বসে ক্যামেরার সাহায্যে পুরো বিষয়টি দেখলেন। ক্রেতা, দোকানদারের সমস্ত কথা শুনলেন গাড়িতে বসেই। যা দেখে রীতিমতো তিনি অবাক। সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে সমস্ত বিষয়টি প্রকাশ্যে এসেছে।

 

আরও পড়ুন-জন্মদিনে ভক্তদের স্পেশ্যাল উপহার দিলেন সিদ্ধার্থ, প্রকাশ্যে এল সেই ছবি...

ভিডিওবার্তায় দীপিকা জানিয়েছেন, আমাদের দেশে যদি অ্যাসিড বিক্রি না হতো তাহলে এত মহিলাকে এইভাবে  অ্যাসিড হামলার শিকার হতে হত না। যত দিন যাচ্ছে এই বিষয়টি যেন আরও বেশি খারাপ রূপ ধারণ করছে। নিজের ভুল থাকুক বা না থাকুক নিজের অজান্তেই অ্যাসিড হামলার শিকার হচ্ছে হাজারো মহিলা। দীপিকার এই ভিডিওটি বর্তমান পরিস্থিতিটা সুন্দর করে তুলে ধরেছে।