সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঠিক পাঁচ দিন আগেই আত্মহত্যা করে মৃত্যু হয় দিশা সাইলানের। ৯ জুন ছাদ থেকে রাত ২ টোর সময় ঝাঁপ দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তখনই করা হয়নি তাঁর ময়না তদন্ত। নেটদুনিয়ায় একাধিকবার এই নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। দুদিন ধরে ফেলে রাখার পর হয়েছিল দিশার ময়নাতদন্ত। তাঁর মৃত্যুর দিন পাঁচেকের মাথায় আত্মহত্যার পথ বেছেনিয়েছিলেন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। 

আরও পড়ুনঃ শাহরুখ-কাজল জুটি, দিলওয়ালে ছবিতে অভিনয়ের জন্য কত টাকা পেয়েছিলেন বার্থডে গার্ল

ঘনিষ্টমহলের বক্তব্য দিশার মৃত্যু নিয়ে চিন্তিত ছিলেন সুশান্ত। বার বার দিশাকে নিয়ে লেখা নানা খবরে চোখ রাখছিলেন তিনি। প্রতিবেশী, বন্ধু সিদ্ধার্থ পিটানিকে জানিয়েছিলেন তিনি দিশার মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না। অনেকেই এই আত্মহত্যাকেও হত্যা বলে দাবি করেছিলেন। এবার সেই জল্পনা উষ্কেই সামনে আসে ময়না তদন্তের রিপোর্ট। যা সম্প্রতি বিহার পুলিশ দাবি করেছিলেন, কিন্তু মুম্বই পুলিশের পক্ষ থেকে তা বিহার পুলিশকে তুলে দেওয়া হচ্ছিল না।

দিশার ময়না তদন্তের রিপোর্টে পাওয়া যায় মাথায় ও শরীরের একাধিক জায়গায় চোট পাওয়ার জন্যই মৃত্যু হয় দিশার। যা অস্বাভাবিক বলেও দাবি করা হয় এই রিপোর্টে। যদিও ডাক্তারের কথায় ১৪ তলা থেকে ঝাঁপ দেওয়ার ফলেই এই আঘাত। অন্যদিকে দিশাকে ধর্ষণ করে খুন করার দাবি তোলেন বিজেপি সাংসদ নারায়ণ রানে। সেই মত পরীক্ষা করে দিশার গোপন অঙ্গেরও পরীক্ষা করা হয়। তবে দিশার শরীর জুড়ে থাকা আঘাত, যা অস্বাভাবিক বলে উল্লেখ করা হয়, তার কারণই ক্ষতিয়ে দেখার অপেক্ষায় এখন ভক্তরা।