এবার বিএমসি-র নজরে মনীষ মালহোত্রার অফিস। গত ২৪ ঘণ্টায় ঝড় তুলেছে কঙ্গনা রানাওয়াতের অফিস ভাঙার ঘটনা। একের পর এক শিরোনামে জায়গা করে নিয়েছে এই খবর।এবার সামনে এলো মনীষ মালহোত্রার অফিস নিয়ে অভিযোগ। বলিউড ফ্যাশন ডিজাইনারকে নোটিস ধরাল বিএমসি। জানালো তাঁর অফিসেও নাকি বেআইনি কনস্ট্রাকশন হয়েছে। ৭ সেপ্টেম্বর নোটিস গেল মনীষ মালহোত্রার কাছে। 

আরও পড়ুনঃ 'আমার মরে যাওয়া উচিৎ', রিয়ার গ্রেফতারের পর বাবার ভুঁয়ো ট্যুইট ঘিরে নেটদুনিয়া তোলপাড়

এমনই এক নোটিস পেয়েছিলেন কঙ্গনা রানাওয়াতও। কিন্তু তাঁর ক্ষেত্রে বিষয়টা বেশ আলাদা। কঙ্গনা রানাওয়াত পেলেন জবাব দেওয়ার জন্য মাত্র ২৪ ঘণ্টা। এরই মধ্যে তা খারিজ করে দিয়ে তাড়াতাড়ি ভেঙে ফেলা হল কঙ্গনার অফিস। যা দিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ঝড় উঠেছে নেট পাড়ায়। অথচ, মনীষ মালহোত্রার জন্য বরাদ্দ হল সাত দিন। এখানেই শেষ নয়, বিতর্ক রয়েছে আরও, বিএমসি-র কোপে যে কেবলই ছিল কঙ্গনা তা স্পষ্ট অনেক দিক থেকেই। 

 

 

কঙ্গনা রানাওয়া ছিলেন না মুম্বইতে। মাত্র ২৪ ঘম্টার মধ্যে তিনি মাণ্ডি থেকে রওনা দিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন মুম্বইতে। কিন্তু ততক্ষণে সবটাই শেষ। অথচ মনীষ মালহোত্রা রয়েছেন মুম্বইতেই। কিন্তু তাঁর জন্য দেওয়া হয়েছে ৭ দিন। যার ফলে স্পষ্ট পাশাপাশি দুই অফিস থাকার সত্ত্বেও বিএমসি-র টার্গেট ছিল কঙ্গনা, এমনই জল্পনা এখ নেট দুনিয়ায়। যা নিয়ে একাধিকবার গত ২৪ ঘম্টা মুখ খুলেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত।