একটা অ্যাকাউন্ট নিয়ে সারা দেশ তোলপাড় হচ্ছে। একের পর এক ঘটনা দেখে চক্ষু চড়কগাছ। সম্প্রতি এমন এক ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে যা রীতিমতো নড়িয়ে দিয়েছে গোটা বিশ্বকে। 'বয়েস লকার রুম' নামে একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টকে ঘিরে সমস্যার সূত্রপাত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লিতে। হাইপ্রোফাইল স্কুলের ছাত্রদের এই কান্ড দেখে হতবাক হয়েছে গোটা দেশবাসী। গ্রুপ চ্যাটের মাধ্যমে অশ্লীল ছবি দেখানো থেকে গণধর্ষণের ইচ্ছেপ্রকাশ সবকিছুই যেন দিব্যি চলছিল। সম্প্রতি ওই অ্যাকাউন্টের স্ক্রিনশট প্রকাশ্যে এসেছে। তা দেখা মাত্রই উত্তাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। 

আরও পড়ুন-অভিনয়ে নয়, শিক্ষাগত যোগ্যতায় টলিপাড়ায় কে এগিয়ে...

আরও পড়ুন-৯ বছর শয্যাশায়ী, মধুবালার শেষ আর্তি ছিল 'আমি বাঁচতে চাই'...

দেশের তরুণ প্রজন্মের এই ধরনের কুরুচিকর মানসিকতা দেখে  সকলেই স্তম্ভিত।  এবার 'বয়েস লকার রুম'  নিয়েই সরব হয়েছে বলি তারকাদের একাংশ। সেই তালিকায় সবার প্রথমেই রয়েছেন স্বরা ভাস্কর। যদিও এই প্রথমবার নয়, একাধিকবার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তিনি প্রতিবাদের সুর তোলেন। নিজের ট্যুইটারে সরব হয়েছেন অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর। তিনি জানিয়েছেন, 'এই  কথোপকথন দেখে আরও একবার স্পষ্ট হল যে, কীভাবে কম বয়সেই ছেলেদের মধ্য পুরুষত্ববোধ জেগে ওঠে। কম বয়সি ছেলেরা কীভাবে নাবালিকাকে গণধর্ষণ করার পরিকল্পনা করছে। বাবা-মা এবং শিক্ষকদের এই ছেলেগুলোকে খুঁজে বের করা উচিত। শুধুমাত্র ধর্ষকদের ফাঁসিতে ঝুলিয়েই লাভ নে,  এই মানসিকতাগুলিকে শুরু থেকেই বন্ধ করা উচিত,যাতে ভবিষ্যতের অন্য ধর্ষক জন্ম নিতে না পারে।'

 

অভিনেত্রী  রিচা চাড্ডাও নিজের ট্যুইটারে সরব হয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, 'এটি একটি মারাত্মক সমস্যা।  আমাদের দেশে যৌন শিক্ষা নিয়ে প্রত্যেকেই আড়ষ্ট। তাই কিশোর-কিশোরীরা এখনই যৌন শিক্ষার পরিবর্তে নীল ছবিতেই আসক্ত হয়ে পড়ছে। । এবং এখন  ইন্টারনেটের দৌলতে এইতথ্যও মিলছে  বিনামূল্যে। কতটা বিপজ্জনক!  পরের পাঁচ বছরে তা আরও দুঃখজনক হবে।'

 

 

সোনম কাপুরও এই জঘন্য অপরাধের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, মা-বাবারাই এর মূল কারণ। ছেলেগুলোর লজ্জা হওয়া উচিত। শুধু বলিউড নয়, গোটা দেশ জুড়ে ঘটনার প্রতিবাদে তীব্রভাবে সরব হয়েছেন। মাত্র ১৫ বছরের ছেলে নিজের ক্লাসমেটকে ধর্ষণের পরিকল্পনা করছে। অবিশ্বাস্য এই ঘটনায় সকলেই হতবাক। ইতিমধ্যেই গ্রুপটিকে ব্লক করে দেওয়া হয়েছে। এবং গ্রুপের চার সদস্যকে গ্রেফতারির দাবি জানিয়ে দিল্লি পুলিশকে নোটিসও দিয়েছে দিল্লি মহিলা কমিশন। দিল্লি পুলিশের সাইবার সেলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই কাণ্ডে অভিযুক্ত চার জনকেইচিহ্নিত করা সম্ভব হয়েছে।