১৪ জুন ২০২০, রবিবারের একটি সাধারণ সকাল, দুপুর একটার পরই বদলে গিয়েছিল গোটা দেশের চেহারা। হঠাৎ মেলে খবর প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। ঝড়ের বেগে ভাইরাল হয়ে ওঠে সেই খবর। বন্ধ ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় তাঁর মৃতদেহ, তারপর... বলিউডের এক কালো অধ্যায়ের সূত্রপাত। ঠিক কীভাবে মারা হয়েছে সুশান্তকে, আদেও কী এই ঘটনা আত্মহত্যা! কী বলছেন রিয়া চক্রবর্তী! তিনি তো সুশান্তের সঙ্গে লিভ-ইন-এ ছিলেন। 

 

 

প্রসঙ্গ রিয়া চক্রবর্তী- 

সামনে আসে নয়া খবর, রিয়া চক্রবর্তী ঠিক কয়েকদিন আগেই সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করে চেলে গিয়েছেন। একাই ছিলেন ফ্ল্যাটে সুশান্ত, মানসিক সমস্যার সঙ্গে করছিলেন লড়াই। আবারও প্রশ্ন, কেন এমন অবস্থায় সুশান্তকে একা ছাড়লেন তিনি, তবে কি খুন করা হল সুশান্তকে, সবটাই কি জানতেন রিয়া, বিতর্কে সূত্রপাত এবং পুলিশের মামলা দায়ের। একের পর এক ধোঁয়াশা, ম্লান মুখে সাদা পোশাকে সুশান্তের মরদেহ দেখতে হাজির হওয়া হাসপাতালের মর্গে। কিন্তু সুশান্তের পরিবার ফিরিয়ে নিয়েছিল মুখ। মেনে নেয়নি রিয়াকে। পরিবার থেকে একাধিক অভিযোগে কাঠগোড়ায় তোলা হয় সুশান্তের প্রেমিকা রিয়াকে।

 

 

লাইম লাইটে সুশান্তের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট ও আঘাতের চিহ্ন

সোশ্যাল মিডিয়ায় হু-হু করে ছড়িয়ে পড়ল ভয়ঙ্কর ছবি। সুশান্তের গলায় বেশ কিছু দাগ, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট বা ফরেন্সিক রিপোর্ট কেন স্পষ্ট নয়। পুলিশ কি তবে কিছু লোকাতে চাইছে। কেউ বলছে সুশান্ত বেঁচেছিলেন, হাত নড়ছে, কেউ আবার সিদ্ধার্থ পিঠানির জবানবন্দির অপেক্ষায়। তবে কি সবটাই জানতেন রিয়া চক্রবর্তী! 

 

শুরু হয় জেরা- 

একে একে ডাক পেতে শুরু করলেন সকলেই। রিয়া চক্রবর্তীও পেলেন ডাক। তাঁর সঙ্গে কথা বলে মুম্বই পুলিশ, এরপরই পাটনা পুলিশের খোঁজ শুরু রিয়াকে । মেলে না দেখা। তদন্তে নামে সিবিআই। সিবিএই-এর হাত ধরে সুশান্ত কাণ্ডে প্রবেশ এনসিবির। এরপর মাদক যোগে ডাক পড়ে রিয়া ও তার ভাই শৌভিকের। লাগাতার জেরার পর গ্রেফকার করা হয় রিয়ার ভাই শৌভিক এবং সুশান্তের বাড়ির বাবুরচিকে। এনসিবি দাবি করে অসংলগ্ন বক্তব্য পেশ করছেন রিয়া। জেরার ক্রমান্বয়ে এনসিবির হাতে গ্রেফতার হতে হয় রিয়াকে। রাতারাতি বদলে যায় রিয়া চক্রবর্তীর লাইফের গ্রাফ। ৫০ দিনের মাথায় জেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর সব ঠাণ্ডা। বলিউডে মাদক চক্রের যোগ নিয়ে এরপর এগোতে থাকে এনসিবি-র তদন্ত। চাপা পড়ে যায় সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্তের নিয়মিত আপডেট। 

 

রিয়া চক্রবর্তীর বর্তমান পরিস্থিতি-

চারমাস পর সব ঠাণ্ডা। নিজের মত নিজেকে গুঁটিয়ে নেন রিয়া। মানসিক হতাশায় যেন কোনও চরম সিদ্ধান্ত রিয়া না নিয়ে বসেন, তার জন্য প্রার্থণা করতে থাকেন তার পরিবার। একটা সময় ভয়ে কাঁটা হয়ে ছিলেন রিয়ার মা। সোশ্যাল মিডিয়ার রোশানলে পড়া রিয়া সেখান থেকে কার্যত নিজেকে গুঁটিয়ে নিয়েছেন। তার শেষ পোস্ট ইস্টাগ্রামে ২০২০ সালের ২২ অগাস্ট। সেই সময় রিয়ার বাড়ির সামনে কিছু সাংবাদিক এবং মানুষ হউ-হট্টগোল ও চিৎকার করেছিলেন। সেই ঘটনার ভিডিও করে তা ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছিলেন রিয়া। ব্যাস! এরপর আর ইনস্টাগ্রামে কোনও পোস্ট করেননি রিয়া চক্রবর্তী। এমন কি তার ফেসবুক ও টুইটার অ্যাকাউন্টেও নিজস্ব কোনও পোস্ট নেই। 

 

 

 

সম্প্রতি বাড়ি পাল্টানোর চেষ্টাও করেন রিয়া, ভাই শৌভিককে নিয়ে নতুন বাড়ির খোঁজে বেরিয়েছিলেন তিনি। মুহূর্তে ছবি হয়েছিল ভাইরাল। কয়েকদিনের মাথায় এনসিবি-তে হাজিরার ডাক পড়ে রিয়ার। সেখানেও পরিবারের সকলের সঙ্গে হাজিরা দেন তিনি। আর তারপর ঠিক সুশান্তের জন্মদিনের আগে, ফুল কিনতে গিয়ে মাথা নামিয়ে খাটো কণ্ঠে হাতজোড় করে বলেন, 'ফুলই তো কিনতে এসেছি'। বিগত আটমাসের পরিস্থিতি যেন রিয়াকে প্রতিটা পদে ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে।   

 

ছয় বছরের প্রেম, খবর শুনেই অজ্ঞান অঙ্কিতা- 

টাইমলাইনটা ঠিক একই রকমের, ১৪ জুন রবিবার, সুশান্তের মৃত্যুর খবর শোনা মাত্রই মাথা ঘুরে পড়ে যান অঙ্কিতা লোখাণ্ডে। পরের দিন সুশান্তের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন। মিডিয়ার সামনে মুখও খোলেন। ২০১৬ সালে তাঁদের বিচ্ছেদ হয়, প্রকাশ্যে অঙ্কিতা জানিয়ে দেন তিনি সুশান্তের বিধবা। শেষকৃত্য থেকে স্মরণসভা, সবেতেই সুশান্তের যেন স্ত্রীর ভুমিকাতেই নিজেকে তুলে ধরেন অঙ্কিতা। 

 

জাস্টিস ফর সুশান্ত- 

শুরু হয় নয়া যুদ্ধ, সুশান্তের মৃত্যু হত্যা, বিচার চেয়ে বারে বারে সরব হন অঙ্কিতা। সুশান্তের ছবি বুকে জড়িয়ে ছবি পোস্ট করেন। স্মৃতির পাতায় চোখ রেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন বারে বারে। জানান, রিয়ার জন্যই শেষ হয়েছে সুশান্ত। সুশান্তের ছিল না কোনও মাদকের নেশা। কোনও মানসিক সমস্যা থাকার কথাই নয়। 

 

লাইমলাউটে অঙ্কিতা- 

অঙ্কিতার হয়ে মুখ খোলে নেট দুনিয়া। অঙ্কিতার ডাকে সাড়া দিয়ে বিচারের জন্য পোস্ট ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ট্রেন্ডে উঠে আসে সুশান্তের নাম। ভাইরাল হয়ে ওঠে সুশান্ত সিং রাজপুতের তদন্তের বিভিন্ন মোড়। প্রকাশ্যে আসে অঙ্কিতার সঙ্গে একাধিক ছবি, ছড়িয়ে পড়ে পবিত্র রিস্তা ধারাবাহিকের একাধিক ছবি, সংলাপ, দৃশ্য। 

 

ম্লান মুখে অঙ্কিতার ভেঙে পড়া ছবি- 

চোখে জল, মুখে নেই হাসি, জেরার সময় হাজিরা দেন অঙ্কিতা, পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন, মিডিয়াকে জানান একাধিক তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে সুশান্তের সঙ্গে ছবি। নেটিজেনেরা পাশে এসে দাঁড়ায় অঙ্কিতার, প্রয়াত সুশান্তের স্ত্রীর জায়গায় বসিয়ে দেওয়া হয় তাঁকে। 

 

ঠিক চার মাস পর- 

বর্তমান প্রেমিকের সঙ্গে ভাইরাল অঙ্কিতা। বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে স্পষ্ট করে দেন তিনি সুশান্তকে নিয়ে কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করছেন না। ভাইরাল হয়ে ওঠে অঙ্কিতার স্টানিং লুকে ডান্স ফর্ম। একের পর এক হট মুভসে ভরতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা। সিনেমার জগতে আবারও জ্বল জ্বল করে ওঠে অঙ্কিতা লোখাণ্ডের নাম। শেষ মুক্তি পাওয়া ছবি বাঘি থ্রি। হাতে বেশ কয়েকটি ছবির প্রস্তাব। নেটদুনিয়া বুঁদ এখন তাঁর নয়া স্টানিং লুকে। 

 

 

নেট দুনিয়ায় এখন ঝড় তুলছেন অঙ্কিতা লোখান্ডে। বিপুল সংখ্যক ভক্তের জেড়ে মুহূর্তে ভাইরাল অঙ্কিতার ডান্স স্টেপ। নেই ম্লান মুখে শোকের ছায়া। নেই সুশান্তকে ঘিরে বিষন্নতা। খোস মেজাজেই ভাইরাল বলিকুইন।