সাংবাদিকের উপরে চড়াও হয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন কঙ্গনা রানাউত। জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া ছবির ইভেন্টে সাংবাদিক জাস্টিন রাওয়ের সঙ্গে কঙ্গনার বাকবিতণ্ডার ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল হয়। তার পরেই দেশের বিনোদন দুনিয়ার সাংবাদিকরা একজোট হয়ে বলেন কঙ্গনা ক্ষমা না চাইলে তৎক্ষণাৎ তাঁকে বয়কট করা হবে। তাঁর কোনও মিডিয়া কভারেজও করা হবে না। এই ঘটনার জন্য সাংবাদিকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া ছবির প্রযোজক একতা কাপুর। এবার এই ঘটনায় মুখ  খুললেন কঙ্গনা রানাউত। 

আজ বৃহস্পতিবার একটি ভিডিও করে নিজের বক্তব্য প্রকাশ করেন কঙ্গনা। সেই ভিডিও টুইটারে শেয়ার করেছেন তাঁর দিদি রঙ্গোলি চণ্ডেল। ভিডিওতে তিনি বলেন, প্রত্যেক জায়গায় ভালো লোকজনের সঙ্গে কিছু খারাপ লোকও থাকে। সাংবাদিকরা আমাকে সব সময়ে উৎসাহিত করেছেন। আমি এখন যেখানে তাতে সেই সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসীম। এঁদের কাছে আমি চিরকাল কৃতজ্ঞ থাকব। কিন্তু কিছু সাংবাদিকদের একটি গোষ্ঠী রয়েছে ইচ্ছে করে দেশের সংহতি, একতা নষ্ট করছে। এরা উদার মনস্ক হওয়ার নামে দ্বিচারিতা করে চলেছে, দেশদ্রোহী কাজকর্ম করছে। এরকমই একজন সাংবাদিকের সঙ্গে সেদিন বচসা হয় আমার। আমি ওকে উত্তর দিতে রাজি হইনি। এর পরেই  কয়েকজন এন্টারটেনমেন্ট গিল্ড বানিয়ে আমাকে বয়কট করার হুমকি দিচ্ছে। আমি একবার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হয়ে প্লাস্টিক বন্ধ করার প্রচার করছিলাম। পশু হত্যার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলাম। তখনও ওই সাংবাদিক আমাকে নিয়ে হাসি ঠাট্টা করেছিলেন।

 

 

এমনকী শেষ কঙ্গনা আবারও আক্রমণ করে বলেন, বিক্রি হয়ে যাওয়া সাংবাদিকদের কোনও মূল্য আমার কাছে নেই। আর তার জন্যই আজ আমি দেশের সেরা ও হায়েস্ট পেড অভিনেত্রীদের মধ্য়ে একজন হতে পেরেছি। তোমরা বয়কট করতে চাইলে করতে পারো। এতে আমার কিছু যায় আসে না। 

প্রসঙ্গত, ৭ জুলাই ছবির একটি ইভেন্টে বিনোদন জগতেরই সাংবাদিক জাস্টিনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি শুরু হয় কঙ্গনার। কঙ্গনা অভিযোগ তোলেন, মণিকর্ণিকা ছবির রিভিউ ইচ্ছে করে খারাপ লিখেছিলেন জাস্টিন। তাঁকে নোংরা মানসিকতার বলেও আক্রমণ করেন নায়িকা। আগামী ২৬ জুলাই জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া মুক্তি পাওআর কথা।