১৫ই অগাস্ট মুক্তি পেয়েছিল মিশন মঙ্গল ছবিটি। ছবি জুড়ে মিশন কম, কিন্তু অক্ষয় কুমারের মঙ্গল, বুধ, বৃহস্পতি সবই এখন তুঙ্গে। প্রথম থেকে বাটলা হাউসকে পেছনে ফেলেই এই ছবি এগিয়ে গেল দুধাপ। তবে সারা দেশেই নয়, এবার পশ্চিমবঙ্গেও এই মাতৃভুমি লোকালের নজির গড়া সাফল্য লক্ষ করা গেল। 

আরও পড়ুনঃ সানিয়ার বায়োপিকে শ্রদ্ধা, বলিউডে জল্পনা তুঙ্গে

পাঁচ অভিনেত্রী, দুই অভিনেতা মিলে এই ছবির রসায়নকে এমনভাবে তুলে ধরল যা সকলের মন যে ইতিমধ্যেই ছুঁয়েছে তা নিয়ে দ্বিমত নেই। মিশন মঙ্গল কেন, ভারতের যে কোনও মিশনের ওপর ছবি হলেই তা বরাবর অন্যন্য ছবির থেকে এক ধাপ এগিয়েই থাকে। কিন্তু মিশন মঙ্গল ছবিতে মিশন ছিল কতটা তা স্থির করবেন দর্শক, তবে ছবির আদ্যপান্ত জুড়ে মানুষকে অনুপ্রাণিত করার বিষয় সত্যি এই ছবির জুড়ি মেলা ভার। ইতিমধ্যেই ছবি ১৫০ কোটি টাকা বক্স অফিসে আয় করেছে। 

আরও পড়ুনঃ সিরিয়ালের নয়, বাস্তবের রাণু গান গেয়ে কত টাকা পেল জানলে চমকে যাবেন সকলে

পশ্চিমবঙ্গের দর্শকদের অবদানও এর পেছনে কিছু কম নয়। অক্ষয় কুমার, বিদ্যা বালান, সোনাক্ষী সিনহা, তাপসী পান্নু, কীর্তি কুলহারি, নিত্যা মেনন ও শরমন যোশী অভিনীত এই ছবি ইতিমধ্যেই ৮ কোটি টাকার ব্যবসা করেছে এই রাজ্য। যা অক্ষয় কুমারের বিগত ছবিগুলির থেকে বেশ কিছুটা বেশি। আশা করা যায় এই ছবি এখনও বেশ কিছুদিন রাজত্ব করবে বক্স অফিসে। যদিও সাহোর মুক্তি আসন্ন।

আরও পড়ুনঃ মায়ের অধিকার লড়াই-এ সরব নেহা, ৩৯-তম জন্মদিনে বলি নায়িকার কেরিয়ার গ্রাফ

তবে ছবিটিকে যদি অক্ষয় কুমারের ছবির তকমা দেওয়া হয়, তবে তা খানিকটা ভুল হবে। কারণ যাঁরা ইতিমধ্যেই ছবিটি দেখেছেন তাঁরা জানেন ছবির বেশ বড় অংশ জুড়েই বিদ্যা বালানের ভুমিকা কতটা। এমনকি, পর্দায় দর্শকেরা অক্ষয় কুমারের থেকেও বেশি পেলেন তাঁকেই। ফলে সাত তারকার অভিনয় গুণেই এই ছবি এক কথায় বাজিমাত করল এই রাজ্যে।