ফেসঅ্য়াপে মেতেছেন নেটিজেনরা। এক ধাক্কায় সবার বয়স বেড়ে যাচ্ছে। কারও চুল পাকছে, কারও দাঁত পড়ছে। কারোকে আবার মুখে ভাঁজ পড়ে চেনাই যাচ্ছে না। এই অ্যাপ নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা করছেন সেলেবরাও। অর্জুন কাপুর, তপসি পন্নু, নিক জোনাসও দেখে নিয়েছেন বয়স হলে তাঁদের দেখতে কেমন লাগে। কিন্তু নেটিজেনরা বলছেন এই ফেসঅ্যাপের নিরিখে পুরস্কার  দেওয়া হলে, প্রীতি জিন্টাকেই দেওয়া হবে। অবাক হচ্ছেন তো! 

আরও পড়ুনঃ ভারতীয়দের জন্য বন্ধ হয়ে যেতে পারে রাতারাতি ভাইরাল হওয়া 'ফেস অ্যাপ'

নেটিজেনরা মজা করে বলছেন, ফেস অ্যাপে সবথেকে এগিয়ে রয়েছেন প্রীতি। কারণ ফেসঅ্যাপ নামক অ্যাপের ভাবনা আসার আগেই প্রীতি দেখিয়ে দিয়েছিলেন তাঁকে বয়স হলে কেমন লাগবে দেখতে। না, আসলে কোনও অ্যাপের মাধ্য়মে নয়, ২০০৪ সালে বীর জারা ছবিতেই সকলে দেখেছিলেন প্রীতি জিন্টাকে দেখতে কেমন লাগে। 

এই ছবিতে যৌবনে ও বৃদ্ধাবস্থায় কেমন লাগে প্রীতিকে, দুটোই দেখেছিলেন দর্শকরা। বৃদ্ধ বয়সের লুকে ছিল ধূসর চুল, মুখে বলিরেখা।  প্রীতি নিজেও বীরজাারা থেকে একটি দৃশ্য নিজের ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন। ক্যাপশনে লেখেন, দেখুন আর বলুন। বহু দিন আগেই ফেসঅ্যাপ করা হয়ে গিয়েছে। মুহূর্তে ভাইরাল হয় সেই ভিডিও। 

প্রসঙ্গত, ফেসঅ্য়াপ একচি ট্রেন্ডিং অ্যাপ, যেটির মাধ্য়মে সহজেই দেখে নেওয়া যায় বয়স হলে কোনও ব্যক্তিকে কেমন দেখতে হবে। বয়স কমলেও কেমন দেখতে হবে তা-ও বলে দিতে পারে এই অ্যাপ।