কম বেশি সকলেই যৌন নিপিড়নের শিকার, যেখান থেকে নিস্তার মেলেনি তারও। এমনই স্বীকারোক্তি উঠে এল প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বক্তব্য। ২০১৯ উইমেন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড সন্মেলনে এসে সকলের সামনে তারকা স্পষ্ট কথায় জানিয়ে দিলেন #metoo –র ফলে মেয়েয়া এখন অনেক বেশি স্বাচ্ছন্দ  বোধ করেন বাস্তবটা তুলে ধরার ক্ষেত্রে।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মতে, বর্তমান পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটেছে অনেকাংশে। #metoo-একটা জায়গা করেদিয়েছে মেয়েদের সমস্যাগুলো তুলে ধরার ক্ষেত্রে। মেয়েরা এখন মেয়েদের প্রতি যেভাবে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে, তাতেই পরিবর্তন ঘটছে পরিস্থিতির। মেয়েদের প্রতিবাদ করার মত উচ্চস্বর ছিল বরাবরই, কিন্তু কেউ শোনার মতো ছিল না। নির্ভয় ও নির্দ্বিধায় মেয়েরা এখন অনায়াসে প্রকাশ্যে জানাতে পারে যৌন নিপিড়ন ও নির্যাতনের কথা।

তিনি আরও জানান, যৌন নিপিড়নের ক্ষেত্রে এই মুহূর্তে যেভাবে আমরা নিজেদের সমর্থন করে চলেছি, আর কেউ আমাদের চুপ করিয়ে রাখতে পারবে না। এখন যদি তোমার কাছে তুলেধরার মতো কোনও গল্প থাকে, জানবে তুমি আর একা নও। নিজের জীবনে যৌন নিপিড়নের কথা প্রকাশ্যে আনার প্রসঙ্গে তিনি জানান, আমরা কেউই বাদ নই। সকলেরই কম বেশি এ অভিজ্ঞতা আছে। যদিও এবিষয় বিশেষ কিছু জানাননি তিনি।

২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছিল #metoo। একপ্রকার মেয়েদের স্বরব হওয়ার এক উন্মুক্ত প্রতিবাদের জায়গা এনে দিয়েছিল #metoo। যেখানে, কেবলমাত্র বিনোদন জগতের তারকারাই নন, যার মাধ্যমে বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে আসা মেয়েরা একে একে প্রতিবাদের জায়গা হিসেবে বেছে নিয়েছে এই #metoo প্লাটফর্মকে।–বলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।