সুশান্তের মৃত্যু যেন গোটা বি-টাউনকে নড়িয়ে দিয়ে গেছে। তার মৃত্যুকে কেন্দ্র করেই বলিউডের অন্ধকার দিক গুলি ক্রমশ বেরিয়ে আসছে। একের পর এক গুরুতর অভিযোগে বিদ্ধ হচ্ছে খান পরিবার। সম্প্রতি সুশান্তের মৃত্যুর মধ্যেই পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের দাদা অভিনব কাশ্যপ একাধিক গুরুতর অভিযোগ এনেছেন সলমন খানের বিরুদ্ধে। তবে শুধু সলমনই নয়, আরবাজ, সোহেল তারাই নাকি অভিনবের কেরিয়ার নষ্ট করে দিয়েছেন। একাধিক মন্তব্যে ভরে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায় পাতা। একাধিক অভিযোগ রয়েছে সলমনের বিরুদ্ধে। খান পরিবারের উপর একের পর এক অভিযোগ উঠে আসছে। 


সম্প্রতি অভিনব কাশ্যপ সোশ্যাল মিডিয়ায় সলমনকে বয়কটের দাবি তুলেছেন। শুধু তাই নয়, সলমন ও তার ভাই আরবাজ ও সোহেল খানের বিরুদ্ধে একাধিক গুরুতর অভিযোগ এনেছেন অনুরাগের দাদা।  এবার অভিনব সিং কাশ্যপের বিরুদ্ধে  মুখ খুললেন আরবাজ খান। বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারেই আরবাজ জানিয়েছেন, অভিনবের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।  খান পরিবারের সম্মান নষ্ট করার জন্য এই পদক্ষেপ নিচ্ছে সলমনের পরিবার। অভিনবের সঙ্গে খান পরিবারের ঝামেলা শুরু হওয়ার পর থেকে অনুরাগ কোনও বিষয়েই মুখ খোলেননি। বরং তিনি জানিয়েছেন, তাকে যেন এই বিষয়গুলি থেকে দূরে রাখা হয়।


অভিনব জানিয়েছেন, সলমন খান ও তার ভাইয়েরা মিলে তার কেরিয়ারটা নষ্ট করে দিতে চেয়েছিলেন। এমনকী অনুভবকে খুনের হুমকি ও তার পরিবারের সদস্যদের ধর্ষণের হুমকি ও দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিচালক। তিনি আরও জানিয়েছন, দাবাং ২ তৈরির সময় আরবাজ খান ও সোহেল খানই তার কেরিয়ার ধ্বংসের জন্য দায়ী ছিলেন। তিনি যে প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে কাজ করতে গেছেন সেখানেই হাজির হয়ে গেছিল খান ভাইয়েরা। নিজের কেরিয়ারের পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবনকেও ধ্বংস করার চেষ্টা চালিয়েছিলেন খানেরা। বিস্ফোরক অভিযোগ অভিনব-এর। তারপর থেকেই জোর শোরগোল শুরু হয়েছে বি-টাউনে। সলমনের বাবা সেলিম খানও জানিয়েছেন,অভিনব তার পরিবারের নাম টেনে এনেছেন। অভিনবের যা ইচ্ছা তাই করুক, যা খুশি তাই বলুক। এই বিষয়ে  মন্তব্য করে তিনি নিজের কোনও সময় নষ্ট করতে চান না।