বাড়িতেই করলেন দেশরার পুজো। মান্যতা দত্ত নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন সঞ্জয় দত্তের পুজো করার ভিডিও। ক্যাপশন দিয়েছেন, "তুমি আমার শক্তি, তুমি আমার গর্ব, আমার রাম।" মারণ রোগের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সঞ্জয় দত্ত। বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্তর স্টেজ ফোর-এ ধরা পড়েছিল ফুসফুসের ক্যান্সার। সকলেই তাঁর শরীর খারাপের খবরে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। মারণরোগের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। কোনও অবস্থাতেই হার মানতে নারাজ তিনি। ক্যান্সারকে হারিয়ে নভেম্বরেই কাজে ফিরবেন বলেই আশ্বাস দিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত। এরই মধ্যে ভক্তদের সুখবর দিলেন তিনি। 

সম্প্রতি নিজের টুইটারে যুদ্ধ জয়ের কথা টুইটে জানিয়েছেন অভিনেতা। ইকরা ও শাহরানের ১০ বছরের জন্মদিনেই যুদ্ধ জয়ের ঘোষণা করেন অভিনেতা। তিনি জানান, "শেষের কয়েকটা দিন ভীষণ কঠিন ছিল। তবে শেষমেষ সমস্ত যুদ্ধ জয় করে সন্তানদের জন্মদিনে খুশির খবর দিতে পেরে আমি আনন্দিত।" এই কঠিন যুদ্ধে জয়লাভ করে ভীষণ খুশি সঞ্জয় দত্ত। পরিবার, বন্ধু, অনুরাগীদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত। এবং এর পাশাপাশি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কোকিলাবেন হাসপাতালের ডঃ সেওয়ান্তি এবং তার গেটা টিমকে। যারা সবরকম ভাবে তার খেয়াল রেখেছেন। 

আরও পড়ুনঃREEL-এই খুনসুটি নিখিল-শ্যামার, অন্যদিকে নীল-তৃণার পুজো প্রেম, ভাইরাল তিন তারকা

 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

Dedicating this Dusshera to someone who has been such an inspiration not only to me, but to so many others. Life has thrown many difficulties at him, but he has always fought back with patience, grace and love. And when we thought we finally had peace, life threw yet another challenge. Today he has once again proven that a positive mind can win and conquer the worst situation with resilience and courage! There is truly no one like you Sanju, you taught me when the going gets tough, only the tough gets going. You are my strength, my pride, My Ram!! #vijayadashami bhava!! Wishing everyone peace and prosperity #love #grace #positivity #dutts #beautifullife #thankyougod 🙏

A post shared by Maanayata Dutt (@maanayata) on Oct 25, 2020 at 12:35am PDT

 

বিশেষজ্ঞদের মতে, চতুর্থ পর্যায়ের ফুসফুসের ক্যানসারের ক্ষেত্রে রোগীর বাঁচার সম্ভাবনা খুবই কম থাকে। গত পাঁচ বছরের রিপোর্টে দেখা গেছে, মাত্র ১০ শতাংশ রোগী এই পর্যায়ের ক্যান্সারকে হার মানাতে পেরেছেন। কিন্তু তিনি পুরো উল্টো। শরীরে মারণ রোগ বাসা বাঁধলেও দমে যায়নি সঞ্জয়ের ডেডিকেশন। কেমোথেরাপি মধ্যেও আপকামিং ছবি 'শামসেরা'র শুটিং শুরু করেছিলেন অভিনেতা। বাকি ছিল ৬ দিনের শুটিং। আবার তা শেষ করতেই মাঠে নেমেছিলেন সঞ্জয়। এর মধ্যেই হাতে রয়েছে বেশ কয়েকটি বিগ বাজেটের ছবি। বর্তমানে ৬ টি ছবি রয়েছে সঞ্জয়ের হাতে। তার মধ্যে বেশ কয়েকটি ছবির কাজ শেষ। আবার কয়েকটির কাজ এখনও বাকি।