দিল বেচারা ছবি নিয়ে চারিদিকে জয়জয়কার। ছবি মুক্তির তিন ঘন্টায় আইএমডিবি রেটিং দাঁড়িয়েছে ১০/১০। যা বলিউডের পাশাপাশি হলিউডেও কখনও হয়নি। এরই মদ্যে সুশান্ত সিং রাজপুতের এই ছবি নিয়ে রিয়া চক্রবর্তীর পোস্টে ক্ষোভ উগরে দিয়েছে সাইবারবাসী। রিয়া ছবির একটি পোস্টার শেয়ার করে লিখেছেন, "তোমায় এভাবে শেষবারের মত দেখতে আমার বুকটা ফেটে যাচ্ছে। তুমি এখানেই আছ আমার সঙ্গে, আমি জানি। আমার জীবনের হিরো তুমি। আমার সঙ্গে বসে নিজের শেষ ছবি দেখবে তুমি।" এতেই রোষের মুখে পড়লেন রিয়া। তাঁকে নিয়ে আগে থেকে জল্পনার কোনও অন্ত নেই। সুশান্তের মৃত্যুর এক মাস পর একের পর এক পোস্টে নিজের বিপদ বাড়িয়ে চলেছেন রিয়া। 

আরও পড়ুনঃতিন ঘন্টায় ১০/১০ রেটিং, হলি-বলির সমস্ত রেকর্ড ভাঙল সুশান্তের 'দিল বেচারা'

ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর নিন্দায় ভরল কমেন্ট সেকশন। নেটিজেনরা লেখে "ও তোমার জীবনের হিরো ছিল, কিন্তু তুমি ওর জীবনে ভিলেন হয়ে দাঁড়িয়েছিলে।" সুশান্তের আকস্মিক মৃত্যুতে আজও শোকস্তব্ধ তাঁর পরিবার সহ গোটা দেশ। অন্যদিকে রিয়া চক্রবর্তীকে নিয়ে নানা জল্পনা। তিনি নাকি মহেশ ভাটের কথাতেই সুশান্তকে মানসিক অবসাদের মধ্যেই ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন রিয়া। নেটিজেনের দাবি, রিয়া নাকি সুশান্তের সম্পত্তির জন্য তাঁর সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন। বিয়েও নাকি করার কথা ভেবেছিলেন সেই কারণে। এমনই দাবি এনে রিয়াকে ভালমন্দ শুনিয়ে চলেছে নেটিজেনরা। সম্প্রতি, রিয়া সুশান্তের মৃত্যুর এক মাস পর মুখ খলেছেন। অমিত শাহ-এর কাছে দাবি জানিয়েছেন সিবিআই তদন্তের। তবে তাতে ক্ষোভ এক ফোঁটাও কমেনি সুশান্ত ভক্তদের। 

আরও পড়ুনঃ'অসংখ্য ভালবাসা রইল তোমার জন্য', সুশান্তের জন্য আবেগঘন অঙ্কুশ

 

রিয়াকে ধর্ষণের হুমকি, আত্মহত্যার পরমার্শ দেওয়া সবই লাগাতার চলছে। এরই মাঝে বেরিয়ে এয়েছে অন্য তথ্যও। রিয়া এবং তাঁর ভাই সৌভিক দু'জনে মিলে নয়-ছয় করেছিলেন সুশান্তের সম্পত্তির। রিয়ার নামে করা সুশান্তের তিনটি স্টার্ট আপ কোম্পানির মধ্যে একটি। একটিতে ম্যানেজিং ডিরেক্টর বানিয়েছিলেন রিয়ার ভাইকে। সেই সময় থেকেই রিয়া এবং সৌভিক টাকা সরানো শুরু করে। সুশান্তের নজরে বিষয়টি আসতেই রিয়া ও সৌভিকের সঙ্গে সমস্যা সৃষ্টি হয়। এছাড়াও রিয়ার বিদেশ ভ্রমণের সমস্ত খরচ মেটাতেন সুশান্ত। ক্রেডিট কার্ডের বিল আকাশ ছোঁয়া। ডেবিট কার্ডের ঘন ঘন ট্রান্সজ্যাকশন। শপিংও করতেন সুশান্তের টাকায়। সুশান্তের আর্থিক সমস্যা নিয়ে যে কথা উঠেছিল সেই তথ্যেই সন্দেহ প্রকাশ করেছে ভক্তরা। আদৌ কি আর্থিক সংকট ছিল অভিনেতার। নাকি রিয়া এবং তাঁর ভাইয়ের জন্যই অর্থকষ্টে ভুগছিলেন তিনি।