সুশান্তের মৃত্যুর খবরে উত্তাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। অভিনেতার মৃত্যুর তিনদিনের মাথাতেই বিহারের মুজফফরপুর আদালাতে সলমন, করণ জোহর, একতা কাপুর, বনশালি, যশরাজ ফিল্মসের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। যা নিয়েই জল্পনা ছিল তুঙ্গে। প্রয়াত অভিনেতার মৃত্যুর পর থেকেই নেপোটিজম মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল বলিউডে।  বলিউডের  উজ্জ্বল ব্যক্তিত্বদের কারণেই মানসিক অবসাদের শিকার হয়েছিলেন অভিনেতা। এবং এই স্বজনপোষণ নীতি তার মৃত্যুর পিছনে দায়ী বলে মনে করছেন একাংশ। অভিনেতার মৃত্যুর পর থেকে নানা প্রশ্নে বিদ্ধ হয়েছে টিনসেল টাউন। প্রভাবশালীদের উপর একের পর এক ওঠা অভিযোগের ভিত্তিতেই কাঠগড়ায় ছিলেন সলমন খান।

আরও পড়ুন-শারীরিক সম্পর্ক চলাকালীন বেডরুম ছেড়ে বেরিয়ে যান মহেশ, নগ্ন অবস্থাতে বেরিয়ে কী করেছিলেন পারভিন...


ফের বয়কটের ডাক  সলমন খানকে। বি-টাউনের মোস্ট পপুলার চিরকুমার সলমনকে নিয়ে চর্চা সবসময়েই চলে আসছে। ব্যক্তিগত কারণেই হোক কিংবা সিনেমার জন্যই হোক সর্বদাই লাইমলাইটের শীর্ষে থাকেন সলমন। সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই স্বজনপোষণ বিতর্কে নাম জড়িয়েছে সলমনের। সম্প্রতি কপিল শর্মার শো-এর যৌথ প্রযোজনায় ছিলেন বলিউডের ভাইজান। ব্যস তাতেই বিপত্তি।

 

 

সলমনের নাম প্রকাশ্যে আসাতেই রেগে আগুন হয়েছেন সুশান্ত ভক্তরা। কপিল শর্মার শো বন্ধের দাবিতে সোচ্চার হয়েছেন সমস্ত ভক্তগণ। গতকালই জাস্টিস ফর সুশান্ত সিং রাজপুত গ্রুপ সরব হয় বয়কট নিয়ে। তাদের গ্রুপের পক্ষ থেকে এই শো বয়কটের দাবি উঠেছে। এমনকী সংস্থার পক্ষ থেকে সুশান্তের পরিবারকে জানানো হয়, সুশান্ত ভক্তরা সলমন খানকে বয়কট করেছে। যেহেতু কপিল শর্মার এই শো-এ যৌথ প্রযোজকের দায়িত্ব রয়েছেন সলমন, তাই এই শো-টিকেও বয়কটের তালিকায় রাখা হয়েছে। গ্রুপটিতে মোট ৯১ হাজার সদস্য রয়েছেন। সকলেই এই একই সুরে গলা মিলিয়েছেন।