নিমেষের মধ্যে অঙ্ক কষে দেখালেন বিদ্যা বালন। শকুন্তলা দেবীর মত না হলেও তিনিও অঙ্কে বেশ দক্ষ। সম্প্রতি স্কুলপড়ুয়ার অঙ্কের প্রশ্নে নিমেষে উত্তর দিলেন বিদ্যা। অঙ্কের প্রতি ভালবাসার কথা তিনি আগেও জানিয়েছিলেন। অঙ্কের বিষয় তিনি আরও জানান, "অঙ্ককে অধিকাংশ পড়ুয়াদের ভয় পাওয়ার কারণ হল আমাদের পড়ানোর পন্থা। কোনও প্রতিষ্ঠানের বিরোধিতা করছি না। তবে আমাদের উচিত অঙ্কের মত বিষয়কে আরও মজাদার করে তোলা পড়ুয়াদের কাছে। তাতে শেখার ইচ্ছা বাড়বে।" বিদ্যা বালনের কাছে বলিউডের সেই বিরল অভিনেত্রীদের তালিকায় পড়েন যিনি সম্পূর্ণ নিজের প্রতিভার জোরে টিকে রয়েছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। না কোনও গডফাদার, না স্লিম চেহারার চিন্তা ভাবনা, পিওর অ্যাক্টিং। 

আরও পড়ুনঃসুশান্তের আগে আদিত্যের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন অর্থের লোভে, রিয়ার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক নেটদুনিয়া

জিম লুক, এয়ারপোর্ট লুক নিয়েও কোনও মাথাব্যাথাই তাঁর নেই। কারণ তিনিও জানেন, অবশেষে সিনেপর্দায় প্রতিভাই কথা বলবে। এ কথা বলিউডের তাবড় তাবড় পরিচালকরাও জানেন, তাই তাঁর ঝুলিতে এসে পরে পরিচালক অনু মেনন শকুন্তলা দেবী। ইতিমধ্যেই ছবির ট্রেলার ছক্কা হাঁকিয়ে চলেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওটিটি রিলিজের খাতায় নাম লিখিয়েছে ছবিটি। ছবিতে শকুন্তলা দেবী, ভারতের গণিতজ্ঞ যিনি মানব কম্পিউটার নামেই পরিচিত, তাঁর বায়োপিকে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিদ্যা। অবশ্যই আর পাঁচটা কমার্শিয়াল ছবির মত সহজ স্ক্রিপ্ট মোটেই নয়। এই চরিত্রে অভিনয় করার জন্য নিজের মগজের প্রয়োজন পড়বে। সেই বুদ্ধি খাটিয়ে এক ভিন্ন উপায় বড় সংখ্যার নম্বরগুলি মনে রাখতেন বিদ্যা। 

আরও পড়ুনঃযমজ সন্তানদের খুন ও মা-কে ধর্ষণের হুমকি, কড়া আইনি পদক্ষেপ নিতে চলেছেন করণ জোহার

 

অঙ্কের প্রতি ভালবাসা তাঁর চিরকালের। সেখান থেকেই ভিন্ন উপায় অঙ্ক কষতেন তিনি। সেই অভ্যাসই এবার কাজে লেগে গেল বিদ্যার। তিনি জানান, "ছোটবেলা থেকে অঙ্ক আমার প্রিয় বিষয়গুলির মধ্যে একটি ছিল। সবসময় ভাবতাম একটা অঙ্ক কষার ভিন্ন উপায়। অন্যভাবে কীকরে একটা অঙ্ক কষতে পারব আমি। আমার এখনও মনে আছে মা আমাদের গানের মাধ্যমে নামতা শেখাতেন। আর অদ্ভুতভাবে তা মনেও থাকত। আমি যখন শকুন্তলা দেবীতে কাজ করতে শুরু করি তখন এই উপায়ই আমার কাজে লাগল। কখনও ভাবিনি সেই মজার দিনগুলো একদিন এভাবে কাজে আসবে।" আগামী ৩১ জুলাই অ্যামাজন প্রাইম ভিডিওতে মুক্তি পেতে চলেছে শকুন্তলা দেবী।