দ্বিতীয় দফায় ফের করোনার ঢেউ আছড়ে পড়বে না তো? লন্ডনে এবার আরও কড়া সতর্কতা জারি করল প্রশাসন। পাব কিংবা রেস্তোরাঁই শুধু নয়, শনিবার থেকে বাড়িতেও আর জমায়েত করতে পারবেন না বন্ধ-পরিচিত কিংবা আত্মীয়েরা।

আরও পড়ুন: করোনার প্রতিষেধকের জন্য তরুণদের অপেক্ষার প্রহর হবে লম্বা, হু-এর পক্ষ থেকে বার্তা সৌম্যা স্বামীনাথনের

প্রথম দফায় ধাক্কায় পুরোপুরি সামলে ওঠা যায়নি এখনও। দ্বিতীয় দফায় যদি ফের করোনা সংক্রমণ ছড়ায়! আশঙ্কা কিন্তু ক্রমশই বাড়ছে ইউরোপে। পরিস্থিতি রীতিমতো উদ্বেগজনক ইংল্যান্ডে। বৃহস্পতিবার নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ হাজার মানুষ। পজিটিভ রিপোর্ট আসার পর একমাসের মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ১৩৮ জন। ব্রিটিশ সরকারের হেল্প সেক্রেটারি ম্যাট হ্য়ানকক জানিয়েছেন, শনিবার থেকেই আরও নিষেধাজ্ঞা আওতায় চলে আসবে লন্ডন, এসেক্স, ইয়র্ক-সহ একাধিক এলাকা। ফলে কার্যত গৃহবন্দি জীবন কাটাতে হবে সেদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি মানুষ।

আরও পড়ুন: করোনা গবেষণায় কামাল করলেন বাঙালি অধ্যাপক , আমেরিকায় বসে পথ দেখালেন দীপ্ত ভট্টাচার্য

এদিকে আবার করোনা আতঙ্কের মাঝেই ইতালি, ভ্যাটিকান সিটি ও সান মারিনো থেকে ইংল্যান্ডে ফিরছেন অনেকেই।  দেশের ফেরার পর সকলকেই চোদ্দো দিন আলাদা থাকার নির্দেশ দিয়েছে ব্রিটিশ সরকার। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে দেশজুড়ে জনস্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারি করেছে ফ্রান্সও। স্থানীয় সময় শনিবার রাত ন'টা থেকে ভোর ছ'টা পর্যন্ত কার্ফু জারি থাকবে ৯টি শহরে। নাইট কার্ফু  চলবে অন্তত চার সপ্তাহ।