অতি সম্প্রতি ব্রিটিশ রাজপরিবারের অধিকার ছেড়ে দিয়েছেন ডিউক অ্যান্ড ডাচেস অফ সাসেক্স হ্যারি ও মেগান মর্কেল। আর তারপরই মেগানকে তাঁদের ওয়েবসাইটে চাকরি করার জন্য প্রস্তাব দিল 'ইউপর্ন' নামে একটি প্রাপ্তবয়স্ক ওয়েবসাইট। তবে মেগানের মতো প্রাক্তন অবিনেত্রীকে পর্নোগ্রাফিক ভিডিও-তে অভিনয় করার প্রস্তাব দেওয়া হয়নি, তাঁকে এই পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইটটি ডেকেছে তাদের জনহিতকর কাজে সহায়তা করার জন্য।

'ইউপর্নট ওয়েবসাইটের সহ-সভাপতি চার্লি হিউজস, মর্কেলের উদ্দেশ্যে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন। সেখানে হিউজস প্রথমেই মেগানের সাম্প্রতিক পদক্ষেপের জন্য তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে লিখেছেন, তাঁদের ওয়েবসাইটে 'মেগ্সিট', অর্থাৎ ব্রিটিশ রাজপরিবার ছেড়ে হ্য়ারি ও মেগানের সরে আসার খবর গুরুত্ব দিয়ে অনুসরণ করা হয়েছে। রাজপ্রাসাদের গণ্ডির বাইরে তিনি নিজের আলাদা জীবন তৈরি করতে চাইছেন। এই প্রয়াসকে ইউপর্ন কর্তৃপক্ষ দারুণ প্রশংসার চোখে দেখছে।

এরপরই, মেগানকে, তাদের জনহিতকর কাজের বিশেষ উদ্যোগের ডিরেক্টর বা পরিচালক হিসাবে নিযুক্ত হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। হিউজস বলেন, মর্কেলের কাছে অনেক ভাল-প্রাপ্য আকর্ষণীয় সুযোগ আসবে জেনেও তাঁরা এই প্রস্তাব দিচ্ছেন। সংস্থার মতে পুরনো নীতি এবং চিন্তাভাবনার ক্ষেত্রে মেগান 'সৃজনশীল সমাধান খুঁজে পেতে পারেন'। ইউপর্ন চায় মেগান মর্কেল তাঁদের সংস্থার জনহিতকর এবং প্রচেষ্টার জন্য একটি টেকসই কৌশল তৈরি করুন।

তিনি জনহিতকর কাজের ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করলে, তাঁর উপর কী কী বিশেষ কর্তব্য বর্তাবে তারও কতা উল্লেখ করা হয়েছে চিঠিতে। বলা হয়েছে একটি অভ্যন্তরীণ, আন্তঃ বিভাগীয় কমিটি গঠন করতে হবে তাঁকে। সেই কমিটিই প্রাথমিকভাবে ইউপর্নের পরোপকারী প্রচেষ্টাগুলির তদারকি করবে। সেই কমিটির নেতৃত্ব দেবেন মেগান। মেগান চাইলে ইউপর্ন এই কাজের পুরো রূপরেখা মেগানকে পাঠাবে বলেও জানানো হয়েছে। মেগান মর্কেল এখন তাঁদের সেই আহ্বানে সাড়া দেন কিনা, সেটাই দেখার।