করোনভাইরাস মহামারি বিরোধী-পদক্ষেপের অংশ হিসাবে বন্ধ হল গভীর রাতে সংসদ ভবনে মদ্যপান। ব্রিটেনে নতুন করে করোনাভাইরাস মহামারির সংকট বাড়ছে। এই অবস্থায় গত সপ্তাহেই নতুন করে অর্থনৈতিক কার্যক্রমে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। যুক্তরাজ্যের সমস্ত বার ও রেস্তোঁরাগুলিকে রাত দশটার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে কর্মক্ষেত্রের ক্যান্টিন আরও দীর্ঘ সময় খোলা রাখা থে পারে বলে জানানো হয়েছিল। সেই নিয়মের ফাঁক ধরেই ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ক্যাটারিং পরিষেবাও রাত দশটার পরেও খোলা রাখা হচ্ছিল। চলছিল মদ্যপানও।

এই নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। আইনপ্রণেতাদের একাংশও বলেন, এতে করে জনসাধারণের মধ্যে রাজনীতিবিদদের ভাবমূর্তির আরও খারাপ হচ্ছে। এরপরই সোমবার ব্রিটিশ সংসদীয় মুখপাত্র স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, রাত দশটার পর সংসদ ভবন এলাকার কোথাও মদ বিক্রি করা হবে না। তবে সংসদের রাতের অধিবেশন চলাকালীন খাবার বিক্রি করার ক্ষেত্রে কোনও বাধা নেই।

তার আগে এই বিষয়ে ঐক্যমত হন শাসক-বিরোধী দুই পক্ষই। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হেলেন হোয়াটলি বলেন, সাংসদদের সংসদ চত্ত্বরে মদ্যপানের জন্য অনেক রাত পর্যন্ত বসে থাকাটা মোটেই উচিত নয়। তিনি জানান, সাংসদ হিসাবে তাঁরা সেখানে যান নির্দিষ্ট কাজ করতে, মদ্যপান করতে নয়। বিরোধী লেবার পার্টির সাংসদ ওয়েস স্ট্রিটিং-ও টুইট করে সংসদ চত্ত্বরে সাংসদদের রাতের মদ্যপানের ঘটনাকে অত্যন্ত হাস্যকর ঘটনা বলে বর্ণনা করেন। এরফলে সংসদ ভবনও হাস্যাস্পদ হয়ে উঠছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। এই প্রবণতার অবিলম্বে পরিবর্তন দাবি করেছিলেন তিনি। সাংসদদের জন্য একরকম নিয়ম আর বাকিদের জন্য আরেক রকম নিয়ম - এরকমটা হতে পারে না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।