দীপিকা সরকার,দুর্গাপুর-করোনাভাইরাসের আতঙ্কে গোটা দেশ। সংক্রমণ রুখতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় রাজ্যের সব স্কুল, কলেজ বন্ধ। তালাবন্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে স্কুলগুলি। কিন্তু এই করোনা আবহের মধ্য়েই দুষ্কৃতীদের সেফ জোন হয়ে উঠেছে এই বন্ধ স্কুলগুলি। দুর্গাপুরে দেখা গেল সেরকমই চাঞ্চল্যকর ছবি।

ফাঁকা স্কুলগুলিতে নজরদারি না থাকায় দুষ্কৃতী দৌরাত্ম্য বেড়েছে। স্কুলের তালা ভেঙে ভিতরে ঢুকে চলছে দেদার আড্ডা। অবাধে চলছে মদ, জুয়ার আসর। সম্প্রতি এমন ছবি দেখা যাচ্ছে বুদবুদ থানার ভরতপুর এলাকার মনোরম প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। বিনা বাধায় দিনে রাতে অবাধে চলছে মদ, গাঁজার ঠেক। স্কুল চত্বরে পড়ে রয়েছে  মদের বোতল, প্লাস্টিকের গ্লাস। অন্য়দিকে, কাঁকসা থানার আমলাজোড়া হাইস্কুলের শ্রেণিক্ষের তালা ভেঙে দুষ্কৃতীরা দিনরাত আড্ডা দেয় বলে অভিযোগ। 

লকডাউন চলাকালীন গাংবিল ডাঙা জুনিয়র প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চুরির ঘটনা ঘটে। স্কুলের তালা ভেঙে মিড ডে মিলের চাল চুরি করে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। স্কুল থেকে প্রায় দুই কুইন্ট্য়াল চাল চুরি করা হয় বলে অভিযোগ। এরপরই পুলিশের নজরদারির জন্য পুলিশের দ্বারস্থ হয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

দুর্গপুর মহকুমার বিভিন্ন স্কুলের এই ধরনের ঘটনা প্রায়ই প্রকাশ্যে আসছে। ঘটনায় তীব্র নিন্দায় সরব হয়েছেন শিক্ষক মহল। স্কুলে সমাজবিরোধীদের গতিবিধির বিষয় গুলি প্রকাশ্যে আসতেই তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। পুলিশের কাছে আবেদন করা হয়েছে বলে জানান বিভিন্ন স্কুলের প্রধান শিক্ষকরা।

এ বিষয়ে আসানসোল-দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি (পূর্ব) অভিষেক গুপ্তা বলেন, স্কুলের তরফে অভিযোগ করা হলে ব্যবস্থা নিচ্ছে পুলিশ।