পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান- বছর কুড়ির কলেজ ছাত্রের আত্মহত্যার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল পশ্চিম বর্ধমানের কালনায়। বাবার সঙ্গে কারখানায় কাজ করার সময় বাড়ির ভিতর গিয়েছিল সে। তারপর আর ফেরেনি। 

পরিবারের দাবি, দীর্ঘদিনের মাথার চুলের সমস্য়া নিয়ে মানসিক অবসাদে ছিল কালনার ওই কলেজ ছাত্র। কলকাতা সহ বিভিন্ন জায়গায় ডাক্তার দেখিয়েও কোনও কাজ হয়নি।মাথার চুল পড়ে যাওয়ায় পাড়া প্রতিবেশী ও কলেজের বন্ধুরা তাঁকে ন্য়াড়া বলে টিটকিরি করত বলে অভিযোগ। সেই থেকে মানসিক অবসাদে ভুগছিল সুরজিৎ। তারপরই এই মর্মান্তিক পরিণতি বলে দাবি পরিবারের।

কালনার ধাত্রীগ্রামের মাঠপাড়ার এলাকার বাসিন্দা সুরজিৎ বসাক। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, পড়াশুনায় ভাল ছিল সে। কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল বলে সুরজিৎ। চুলের সমস্যার কারনে লোকে তাঁকে 'দাদু' বলে ব্যাঙ্গ করত। এদিন বাবার সঙ্গে কাজ করার সময় আচমকা বাড়ির ভিতর যায়। সেখানে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে বলে দাবি। পরিবার সূত্রে খবর, ঘটনাস্থল থেকে সুইসাইড নোটও উদ্ধার হয়েছে।