পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান: সিঁড়ির ধাপে চারটি তাজা বোমা, সাতসকালে টাকা চেয়ে অনুব্রত মণ্ডলের নামে হুমকি চিঠি এসেছে বাড়িতে। আতঙ্কে ঘুম উড়ে গিয়েছে পূর্ব বর্ধমানে মঙ্গলকোটের এক রেশন ডিলারের। থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি। বোমা ও চিঠি উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুরু হয়েছে তদন্ত। অভিযুক্তরা এখনও অধরা।

আরও পড়ুন: জমির ফসল খাচ্ছে পঙ্গপাল, চাষের জমি বাঁচাতে হাতিয়ার 'সৌর আলোক ফাঁদ'

ঘটনাটি ঠিক কী? মঙ্গলকোটের পালিগ্রামের বাসিন্দা জীবনকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়। গ্রামে একটি রেশন দোকান চালান তিনি। স্ত্রী, ছেলে ও মেয়ে নিয়ে সংসার। ওই রেশন ডিলারের দাবি, মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে উঠে বাড়ির সদর দরজা খোলেন তাঁর দিদি রেখা মুখোপাধ্যায়। দরজা খোলার পর তাঁর নজরে পড়ে, সিঁড়ির ধাপে রয়েছে চারটি তাজা বোমা ও একটি চিঠি। চিঠিতে অনুব্রত মণ্ডলের নাম করে লেখা, 'আমাদের ছেলেরা তৈরি থাকবে। আজ রাত সাড়ে ন'টায় তুমি গ্রামের লোকনাথ মন্দির টাকা রেখে আসবে। আমার ছেলের লাইটের আলোর সিগন্যাল দেবে।' এমনকী, যদি নির্দিষ্ট জায়গায় টাকা না রেখে আসেন, তাহলে ওই রেশন ডিলারের বাড়িতে '১০ কেজি গাঁজা ও বোমা গুঁজে দেওয়া হবে।'

আরও পড়ুন: বন দফতরের গোপন অভিযান, হাতির দাঁত সহ শিলিগুড়িতে গ্রেফতার মহিলা

একে তো হুমকি গিয়ে চিঠি, তার উপর আবার সঙ্গে চারটি তাজা বোমা! আর দেরি না করে মঙ্গলকোট থানায় অভিযোগ দায়ের করে রেশন ডিলার জীবনকুমার মণ্ডল। তাঁর দাবি, বৃহস্পতিবার সকালেও নাকি এরকমই হুমকি চিঠি পেয়েছিলেন। সেই চিঠিতে আড়াই লক্ষ টাকা দাবি করা হয়েছিল। প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছেন, দুটি চিঠিরই হাতের লেখা একইরকম। কারা একাজ করল, তাদের সন্ধানে তল্লাশি চলছে। তবে স্থানীয় বাসিন্দারাই শুধু নয়, ওই রেশন ডিলারের ধারনা, এই ঘটনার সঙ্গে অনুব্রত মণ্ডলের কোনও সম্পর্ক নেই।  কাজ হাসিল করার জন্য তাঁর নাম ব্য়বহার করেছে দুষ্কৃতীরা। তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতির অবশ্য কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।