শনিবার রাত ৮টা নাগাদ দফায় দফায় ৩ বার ভেঙ্গে পড়ে বর্ধমান স্টেশনের পুরনো এই ভবন। বরাত জোড়ে বেঁচে গিয়েছেন কয়েকশো সাধারন মানুষ। হাওড়া রেল বিভাগের আধিকারিকরা শনিবার স্টেশন পরিদর্শনের জন্য আসায়, সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় নিত্য যাত্রীদের যাতায়াত ব্যবস্থা। স্থানীয়দের দাবী, রাত ৮টা ৮ মিনিট নাগাদ কেঁপে ওঠে ভবনের একটি স্তম্ভ তারপরেই তাসের ঘরের মত ভেঙ্গে পড়ে পুরনো দেওয়ালের চাঙ্গর। স্টেশনের ১ নম্বর প্ল্যাটফর্ম থেকে ঢোকার মুখেই ওই পুরনো দোতলা ভবনের বারান্দায় নিত্যদিন থাকে হকার ও সাধারণ মানুষের ঢল। 

আরও পড়ুন- বাইরে রং, ভিতরে ফাঁপা, বর্ধমান স্টেশনের সঙ্গে মোদী সরকারের তুলনা মন্ত্রীর

পূর্ব রেল-এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ২ জন। তাঁদের ভর্তি করা হয়েছে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তাঁধের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। জানা গিয়েছে এই ঘটনার তদন্তের জন্য তিন জন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে পূর্ব রেল-এর তরফ থেকে। সেই সঙ্গে এই কমিটিকে তদন্তের রিপোর্ট ১০ দিনের মধ্যে জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় দোকানদার ও নিত্য যাত্রীদের দাবী, স্টেশনের এই অবস্থার বিষয়ে বহু আগেই জানানো হয়েছিল, তবে কারণ স্টেশন চত্তরে এই ঘটনা প্রথম নয়। জানানোর পরেও বিশেষ কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয় নি।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর ও দমকল ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। রাত থেকেই শুরু হয় ধ্বংসস্তুপ পরিস্কার-এর কাজ। দুর্ঘটনার পর পূর্ব রেলের তরফ থেকে চালু করা হয়েছে হেল্প লাইন নম্বর- ০৩৩২৬৪১১৬৬১, ০৩৩২৬৪১৩৬৬০। যাত্রীদের যাতায়াত ব্যবস্থার জন্য বিকল্প পথের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে মূল ভবনের যে অংশটি এখনও রয়ে গিয়েছে তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক। রেল বিভাগের বিশেষজ্ঞরা তার পরীক্ষা করার পরেই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবেন বলে জানা গিয়েছে। স্বাভাবিক হয়েছে রেল চলাচলও।