মোদী সরকারের নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে ব্যাঙ্কিং সেক্টরগুলি। তার জেরে আগামী মাসে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ব্যাঙ্কগুলি। আগামী মাসে এই ধর্মঘটের ফলে দেশজুড়ে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। ২০২০-২০২১ এর ইউনিয়ন বাজেটে অসন্তুষ্ট ব্যাঙ্ক কর্মীরা। এর কারণ হল বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে মার্চ মাসে টানা ২ দিন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ব্যাঙ্ক কর্মচারী সংগঠন।

আরও পড়ুন- সর্বনাশ, বন্ধ হয়ে গেল LIC-র একগুচ্ছ পলিসি, লোকসান হতে পারে লক্ষ লক্ষ টাকা .

জানা গিয়েছে, বেসরকারিকরণের প্রতিবাদে মার্চ মাসে টানা ২ দিন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন ব্যাঙ্ক কর্মচারী সংগঠন। মার্চ মাসের ১৫ ও ১৬ তারিখ ব্যাঙ্ক ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন তাঁরা। ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাঙ্ক ইউনিয়ন-এর পক্ষ থেকে এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে। ১ ফেব্রুয়ারি সংসদে পেশ করা বাজেট ভাষণে দুটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বেসরকারিকরণের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। এর প্রতিবাদে ঐক্যবদ্ধ অবস্থান নিয়েছেন ব্যাংক কর্মচারী ও আধিকারিকরা। ব্যাঙ্কিং ক্ষেত্রের ৯টি ট্রেড ইউনিয়ন এই ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। আগামী ১৫ মার্চ সোমবার থেকে এই ধর্মঘট শুরু হবে। 

আরও পড়ুন- একধাক্কায় হু হু করে কমে যাচ্ছে 'Jio'-র গ্রাহক সংখ্যা, চিন্তার ভাঁজ মুকেশ আম্বানির কপালে 

এই বিষয়ে অশোক কুমার মুখার্জী (Ex Dy Chief Secretary (HQ) SBI SA) জানিয়েছেন, এই বেসকরকারিকরণের ফলে ব্যাঙ্কের কর্মীদের যত না ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তার থেকেও আরও বেশি ক্ষতির মুখে পড়বেন ব্যাঙ্কের গ্রাহকেরা। ব্যাঙ্কের বেসকরকারিকরণের ফলে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বেন সাধারণ মানুষ। এছাড়া বেসরকারিকরণের ফলে গ্রাহকদের ব্যাঙ্কের পরিষেবা পাওয়া বন্ধও হয়ে যেতে পারে।  অশোক কুমার মুখার্জী আরও জানিয়েছেন এই ধর্মঘটের ফলে সমস্যার সমাধান না হলে আলোচনার মাধ্য়মে আরও বৃহত্তর আন্দোলনে যাবে এই ৯ ট্রেড ইউনিয়ন সংস্থা।