Asianet News BanglaAsianet News Bangla

Business Idea-কম পুঁজি বিনিয়োগে মোটা আয়ের সুযোগ,শুরু করুন আদা চাষের ব্যবসা, পেয়ে যাবেন ভর্তুকীও

৭ থেকে ৮ লাখ টাকার বিনিময়ে শুরু করুন আদা চাষের ব্যবসা। আর মাসে আয় করুন ১৫ লাখ টাকা। সঙ্গে পাবেন সরকারের তরফে ভর্তুকীও। 

Good Earn With Low Investment by Ginger Cultivation Along with Govt Subsidy
Author
Kolkata, First Published Nov 13, 2021, 2:50 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

ভিন্নস্বাদের ব্যবসা করে মোটা টাকা আয়ের(Attractive Earn) সুযোগ খোঁজেন অনেকেই। কি ধরনের ব্যবসা করলে মাসে ভালো টাকা রোজগার হবে সেই বিষয়ে অনেকই আইডিয়া(Business idea) চেয়ে থাকেন। আপনি কি স্বল্প পুঁজি বিনিয়োগে(Low investment) স্টার্টআপ বিজনেস(Startup Business) চালু করার প্ল্যানিং করছেন তাহলে আপনার প্রথম পছন্দ হওয়া উচিত এগ্রিকালচার(Cultivation) ভিত্তিক ব্যবসা। আর এই ধরনের ব্যাবসার জন্য প্রথমেই মাথায় আসে জিঞ্চার ফার্মিং(Ginger Firming),অর্থাৎ আদার চাষ। আর আদা হল এমন একটা জিনিস যা জুতো সেলাই থেকে চণ্ডি পাঠ সর্বক্ষেত্রেই প্রয়োজন। কম বেশি প্রতিটি রান্নায় যেমন আদা দরকার হয় ঠিক তেমনই আদা চায়েরও কিন্তু চাহিদা কম নয়। বিশেষ করে শীতের মরশুমে আদা চায়ের জুড়ি মেলা ভার। উল্লেখ্য, এই ব্যবসা অত্যন্ত লাভজনক আর  সরকারের তরফেও এই ব্যবসার জন্য পাওয়া যাবে ভর্তুকীও(Subsidy)। 

১ হেক্টর জমিতে আদা চাষের জন্য  প্রাথমিকভাবে প্রয়োজন ২ থেকে ৩ টন বীজের। ৬ থেকে ৭ pH ব্যালেন্স যুক্ত মাটি আদা চাষের জন্য আদর্শ। সেই সঙ্গে জলসেচের প্রক্রিয়ার ওপর বিশেষভাবে নজর রাখতে হবে। ড্রিপ কৌশল বা ড্রিপ সেচ পদ্ধতি আদা চাষের জন্য ব্যবহার করা হয়। উল্লেখ্য, এই ধরনের জলসেচ পদ্ধতিতে আদার ফলন খুব ভালো হয়। আদা চাষের জন্য একটা জিনিস অবশ্যই মাতায় রাখতে হবে যে, বড় আদার মুখ গুলো এমনভাবে ভেঙে ফেলতে হবে যাতে একটা আদার মধ্যে ২ টি থেকে ৩ টি অঙ্কুর থাকতে পারে। এর পরে ধাপে খেয়াল রাখতে হবে প্রতিটি সারির মধ্যে যেন ৩০ থেকে ৪০ সেন্টিমিটার দূরত্ব বজায় থাকে। আর প্রতিটি গাছের মধ্যে দূরত্ব হওয়া উচিত ২৫ সেন্টিমিটার। ৪ থেকে ৫ সেন্টিমিটার গভীরতায় মাঝের মুখটা বপনের পর মাটি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। আদা চাষ করতে একজন চাষী সরকারের তরফে ভর্তুকী পেয়ে থাকেন। উল্লেখ্য, মধ্যপ্রদেশের হর্টিকালচার বিভাগ স্পাইস এলাকার পরিধি বৃদ্ধির পরিকল্পনা করছে যেখানে সরকারের থেকে ৫০ শতাংশ ভর্তুকী পাওয়া যাবে। উদাহরণস্বরূপ বলা হয়, প্রতি হেক্টরে প্রায় ৫০ হাজার আদা চাষ করার পরিকল্পনা।  জেনারেল কাস্টের চাষীরা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা পেতে পারেন। েআর সিডিউল কাস্ট বা সিডিউল ট্রাইব চাষীদের জন্য সেই টাকার পরিমান প্রতি হেক্টর পিছুর জন্য হবে ৭০ হাজার। 

আরো পড়ুন-Small Business Ideas-চাকরী আর ভালো লাগছে না?ব্যবসা করতে চান?রইল ছোট ব্যবসার বড় টিপস

আরো পড়ুন-Startup Business Tips-কোভিডে কাজ হারানোর যন্ত্রনা, ঘরে বসে উপার্জনের সুযোগ

যদি এক হেক্টর জমিতে আদা চাষের জন্য ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা বিনিয়োগ করা যায় তাহলে ১৫০ থেকে ২০০ মতো আদা পাওয়া যাবে। আদার গড় বাজার দর  ৮০ থেকে ১২০ টাকা প্রতি কেজি। যদি কেজি প্রতি দাম কমে কখনো ৫০ থেকে ৬০ টাকা হয় তাহলেও হেক্ট  প্রতি লাভ হবে ২৫ লাখ।  বাকি সব খরচ বাদ দিয়েই লাভের অঙ্কের পরিমানটা হবে প্রায় ১৫ লাখ। 


 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios