বিশ্বের সেরা ধনী ব্যক্তিদের তালিকা তৈরি করে হুরুন। চিনে রয়েছে এই সংস্থার সদর দফতর। এই সংস্থার তরফ থেকে করোনা মহামারির জেরে গত চার মাসে বিশ্বের ধনীতম উদ্যোক্তাদের আর্থিক অবস্থান কোন স্থানে রয়েছে সেই বিষয়ে একটি তালিকা প্রকাশ করে। সেই রিপোর্ট অনুসারে, বিশ্বের শীর্ষ ১০০ ধনীতম ব্যক্তির মধ্যে রয়েছে চার জন ভারতীয়। তাঁর মধ্যে থেকে একমাত্র মুকেশ আম্বানি আর্থিক উন্নতির গ্রাফ দেখতে ঠিক 'ভি'-আকৃতির মত হয়েছে।

করোনা মহামারির শুরুর দিকে প্রথম দুই মাসে আম্বানি সংস্থা  ১৯ বিলিয়ন ডলার আর্থিক ক্ষতির মুখে ছিল। যা গত দুই মাসে তিনি ১৮ বিলিয়ন ডলার ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ১.৩৭ লক্ষ কোটি টাকা লাভ করেছেন। এর অর্থ গত দুই মাসের সময় তিনি প্রতি ঘন্টা তিনি প্রায় ৯৫ কোটি টাকা আয় করেছেন। হুরুন-এর প্রতিবেদন অনুসারে, আম্বানি এখন বিশ্বের অষ্টম ধনী ব্যক্তি। আম্বানী ছাড়াও বিশ্বের শীর্ষ ১০০ ধনীতম ব্যক্তির তালিকায় রয়েছেন আরও তিনজন। হুরুন-এর সমীক্ষা অনুযায়ী বর্তমানে বিশ্বের প্রথম ধনী ব্যক্তি হয়েছেন অ্যামাজনের কর্ণধার জেফ বেজোস এবং দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন বিল গেটস।

 

ভারতের ভ্যাকসিন কিং- এর কর্ণধার চিকিৎসক সাইরাস পুনাওয়ালা-এর এই দুই মাসে সম্পত্তির পরিমান প্রায় ২৫ শতাংশ প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডলার বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলে তিনি বিশ্বের শীর্ষ ১০০ ধনীতম ব্যক্তির তালিকার ৮৬ তম স্থান থেকে সরাসরি ৫৭ তম স্থানে চলে এসেছেন। হুরুন-এর এই রিপোর্ট দেখে বিশেষজ্ঞদের মত, ভারতের বায়োটেক এবং টেলিকম সেক্টরের উপরেই বিদেশি বিনিয়োগেরা বেশি জোড় দিচ্ছেন। বিশ্বের শীর্ষ ১০০ ধনীতম ব্যক্তির তালিকায় রয়েছেন গৌতম আদানি এবং শিব নাদার।