ইতিমধ্যেই গোটা দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে লকডাউনের আনলক পর্ব।  লকডাউনের জেরে সকলেই ঘরবন্দি। এই পরিস্থিতিতে কোথায়ও বিনিয়োগ করাও খুবই ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়। যেখানেই বিনিয়োগ করবেন সেখানেই কোনও না কোনও সমস্যা। এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে মিউচ্যুয়াল ফান্ডে। চাকরি পাওয়ার আগে এখানে বিনিয়োগ করলেই আপনি হয়ে যেতে পারেন কোটিপতি। বর্তমানে ইনভেস্টমেন্টের জন্য মিউচ্যুয়াল ফান্ড সবচেয়ে লাভজনক বলে মনে করা হচ্ছে ৷ মিউচ্যুয়াল ফান্ড কেবল নিজের নামে নয়, সন্তানদের নামেও ইনভেস্ট করা যেতে পারে।

আরও পড়ুন-হারিয়ে ফেলেছেন আপনার মূল্যবান রেশন কার্ড, জেনে নিন কি করবেন...

বাবা মায়েরা যদি ঠিক সময় সঠিক জায়গায় ইনভেস্ট করা শুরু করে তাহলে সন্তানরা ১৮ বছর হতে হতেই কোটিপতি হয়ে যেতে পারেন। সন্তানদের নামে সিঙ্গল মিউচ্যুয়াল ফান্ডে ইনভেস্ট করা শুরু করে দেওয়া যেতেই পারে এখন থেকেই৷ তবে মিউচ্যুয়াল ফান্ডে অভিভাবকদের নাম থাকা অবশ্যই জরুরি ৷ ফান্ডে ইনভেস্ট করার আগে বাচ্চার বার্থ সার্টিফিকেট থাকা বাধ্যতামূলক ৷ এমনকী বাচ্চার নামে পাসপোর্ট থাকলে সেটিও বৈধ হিসেবে ধরা হবে ৷ 

আরও পড়ুন-হু হু করে রেকর্ড হারে কমছে সোনার দাম, দেখে নিন বাজারের হাল হকিকত...


এসআইপি-র মাধ্যমে মিউচ্যুয়াল ফান্ডে ইনভেস্ট করা এখন সবচেয়ে বেশি ভাল ৷ এসআইপি প্ল্যানে বাচ্চার নামে ইনভেস্ট করা সবচেয়ে বেশি লাভজনক বলেই মনে করা হচ্ছে। ৷ কারণ সন্তানের ১৮ বছর বয়স হয়ে গেলে আর এখানে ইনভেস্ট করা যাবে না ৷ যখন বাচ্চার বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হবে, সমস্ত টাকা সন্তানের নামে হয়ে যাবে ৷ এবং আপনি যদি চান যে ১৮ বছর হতে না হতেই আপনার সন্তান কোটিপতি হয়ে যায় তাহলে জন্মের সময় থেকেই এই মিউচ্যুয়াল ফান্ডে প্রতি মাসে ৫০০০ টাকা করে  ইনভেস্ট করতে শুরু করুন ৷ এবং প্রতি বছর এই ইনভেস্টমেন্টের  ১৫ শতাংশ বাড়িয়ে দিন ৷ এবং ১২ শতাংশের হিসেবেও যদি প্রতি মাসে রিটার্ন পাওয়া যায় তাহলেও ১৮ বছর পূর্ণ হলেই  কোটিপতি হয়ে যেতে পারে  আপনার সন্তান৷ এতে আপনার সন্তানের ভবিষ্যৎও সুরক্ষিত থাকবে এবং আপনারা সকলেই ভাল থাকবেন।