দেশের অনেক রাজ্যেই কোভিড সংক্রমণের ঘটনা ফের বাড়ছে। তার মধ্যে মঙ্গলবার ভারতে কোভিড টিকাকরণ অভিযানের ব্যপ্তি আরও বৃদ্ধি করল। ১ এপ্রিল থেকে ৪৫ বছর বা তার বেশি বয়সীদের সকলকে কোভিড টিকা দেওয়ার অনুমতি দিল কেন্দ্র। এদিন এই কথা জানিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর বলেন, 'আমি ৪৫ বছর বা তার বেশি বয়সী প্রত্যেক নাগরিককে টিকা নেওয়ার জন্য নাম নিবন্ধন করার জন্য আবেদন করছি'।

গত জানুয়ারিতে, ভারতে করোনা টিকাকরণ অভিযান শুরু হয়েছিল। প্রথমে শুধুমাত্র স্বাস্থ্য পরিষেবা কর্মী ও অন্যান্য ফ্রন্টলাইন কর্মীদেরই টিকা দেওয়া হয়েছিল। তারপর এই টিকাকরণের অনুমতি দেওয়া হয় ৬০ এবং ৬০-ঊর্ধ্ব নাগরিকদের। সেইসঙ্গে টিকা নেওয়ার অনুমতি রয়েছে ৪৫ বছর বা তার বেশি বয়সী নাগরিক, যাদের অন্যান্য রোগ রয়েছে তাদের টিকা দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। এখনও সেই ব্যবস্থাই জারি রয়েছে।

প্রকাশ জাভড়েকর আরও জানান, কেন্দ্রের করোনা মহামারি মোকাবিলার টাস্কফোর্স এবং অন্যান্য বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরামর্শ করেই মন্ত্রিসভা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মতে, এখনও পর্যন্ত ৪.৮৫ কোটি নাগরিক, কোভিড ভ্যাকসিনের অন্তত একটি করে ডোজ পেয়েছেন এবং অন্তত ৮০ লক্ষ নাগরিক দুটি করে ডোজই পেয়ে গিয়েছেন। নাগরিকদের সকলকে কোভিড টিকা দেওয়ার মতো পর্যাপ্ট টিকা মজুত রয়েছে বলেও আশ্বাস্ত করেছেন তিনি।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার গবেষণাগারে তৈরি এবং ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত করোনা টিকা কোভিডিল্ডের দুটি ডোজ নেওয়ার মাঝে ব্যবধান বাড়ানোর জন্য, সোমবারই রাজ্যে রাজ্যে চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এই বিষয়ে বলেছেন, দ্বিতীয় ডোজটি চার থেকে আট সপ্তাহের মধ্যে নিতে হবে। তবে দ্বিতীয় ডোজটি ঠিক কখন নেওয়া ভাল, সেই বিষয়ে চিকিত্সকরাই সিদ্ধান্ত নেবেন।