শুক্রবার ভারতের মোট করোনাভাইরাস সংক্রমণের পরিমাণ ২ কোটি ৪০ লক্ষ ছাপিয়ে গেল। এদিন সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রক জানিয়েছে বৃহস্পকিবার গোটা দেশে  ৩,৪৩,১৪৪ টি নতুন কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঘটনা নথিবদ্ধ করা হয়েছে। আর গত ২৪ ঘন্টায় কোভিড জনিত কারণে প্রাণহানি ঘটেছে ৪০০০ জনের। ফলে ভারতে কোভিডে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ২,৬২,৩১৭-এ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ড্যাশবোর্ড অনুসারে দেশের মোট করোনা সংক্রমণের সংখ্যা এখন ২,৪০,৪৬,৮০৯।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত করোনা বুলেটিন অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকালের তুলনায় এদিন আরো একটু কমেছে চিকিৎসাধীন রোগীর চাপ। ভারতে এই মুহূর্তে করোনার সঙ্গে লড়াই করছেন ৩৭,০৪,৮৯৩ জন, যা দেশের মোট কোভিড-১৯ সংক্রমণের ১৫.৬৫ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩,৪৪,৭৭৬ জন। সব মিলিয়ে ভারতে এখনও অবধি করোনামুক্ত হয়েছেন, মোট ২,০০,৭৯,৫৯৯ জন। এরফলে, দেশের বর্তমান সুস্থতার হার দাঁড়িয়েছে ৮৩.২%।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চ বা আইসিএমআর (ICMR) জানিয়েছে, ১৩ মে পর্যন্ত দেশে মোট ৩১,১৩,২৪,১০০ টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার দেশে করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১৮,৭৫,৫১৫ টি নমুনার।

অন্যদিকে, নীতি আয়োগের উপদেষ্টা ডা. ভি কে পল বলেছেন, চলতি বছরের অগাস্ট থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে ভারতে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ২০০ কোটিরও বেশি ডোজ উপলব্ধ হবে।

 এই পাঁচ মাসের মধ্যে ভারতে ২১৬ কোটি ডোজ করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করা হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, যত দিন যাবে, তত বেশি মানুষের জন্য উপলব্ধ হবে করোনার টিকা। পরের বছরের প্রথম তিন মাসেই টিকার মোট ডোজের সংখ্যা ৩০০ কোটিতে পৌঁছাবে বলে আশা দেখিয়েছেন তিনি।