করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে বিশ্বে প্রতিদিনই প্রাণ যাচ্ছে অসংখ্য মানুষের। ভারতেও থাবা বসিয়েছে এই মারণ রোগ। এখনও পর্যন্ত এই দেশে করোনা সংক্রমণের জেরে প্রাণ গেছে সরকারি পরিসংখ্য়ানে তিনশোরও বেশি জনের । আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে  ৯ হাজারের বেশি। এই অবস্থায় সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন ছাড়া পথ ছিল না সরকারের কাছে। কিন্তু ২১ দিনের এই টানা লকডাউনের প্রভাব পড়েছে দেশের অর্থনীতিতে। লকডাউনের মেয়াদ আরও বাড়লে পরিস্থিতি যে জটিল হবে তা বলাই বাহুল্য। 

করোনা ভাইরাসের জেরে স্তব্ধ অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রভাবে গোটা বিশ্বের মতই এদেশে  মন্দার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে ৷ এই অবস্থায় বহু বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের বেতন সংকোচনের আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ সেই আশঙ্কাকে সত্যি করেই ইতিমধ্যে কর্মীদের একাংশের বেতন সংকোচনের পথে হাঁটল ইন্ডিয়াবুলস হাউসিং ফিনান্স৷ জানা গিয়েছে, সংস্থার শীর্ষ আধিকারিকদের বেতন ৩৫ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থার পরিচালন পর্ষদ৷

ডিপার্টমেন্টাল স্টোর বাড়াচ্ছে সংক্রমণের আশঙ্কা, খোলা বাজারকেই ভোট বিশেষজ্ঞদের
করোনায় জেরবার বিশ্বে নতুন করে আশঙ্কার মেঘ, এবার উত্তর মেরুর ওজন স্তরে দেখা দিল ছিদ্র
লকডাউন না মেনে গঙ্গা ভ্রমণ বিদেশিদের, অতিথি বলে ছাড় না দিয়ে ৫০০ বার 'সরি' লেখাল পুলিশ

সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, চলতি অর্থবর্ষের জন্য এই বেতন সংকোচন করা হয়েছে৷ তবে এই বেতন সংকোচন করোনা সংক্রমণের কারণে তৈরি হওয়া পরিস্থিতির জন্য কিনা, সে বিষয়ে কিছু জানায়নি সংস্থা৷ ইন্ডিয়া বুলস-এর তরফে দাবি করা হয়েছে, সংস্থার খরচ কমাতেই বেতন সংকোচনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

গত সপ্তাহেই বেসরকারি ব্যাঙ্ক কোটাক মহিন্দ্রার এমডি উদয় কোটাক এই অর্থবর্ষে মাত্র ১ টাকা বেতন নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন৷ সংস্থার শীর্ষ ম্যানেজমেন্টের কর্তারাও ১৫ শতাংশ কম বেতন নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন৷ এদিকে করোনার প্রভাবে দেশের সরকারি কোষাগারেও টান পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে তেলেঙ্গানা, মহারাষ্ট্র সহ একাধিক রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের বেতন কমানোর মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

কেন্দ্রীয় সরকারও ১ বছরের জন্য সাংসদ-মন্ত্রীদের বেতন কমানোর পথে হেঁটেছে। করোনার জন্য তৈরি করা ত্রাণ তহবিলে এই টাকা দেওয়া হবে। শুধু মাসিক বেতন নয়, সাংসদ-মন্ত্রীদের বিভিন্ন ধরণের ভাতা এবং পেনশনও একইভাবে কমান হয়েছে৷