সাধারণের কাছে এখন সোনু এখন ভগবান। তাই তাঁর দুয়ারেই সাধারণ মানুষ বর্তমানে ভিড় জমাচ্ছেন। চোখের জল ও মনে ভরসা আশা নিয়ে সকলেই নিজেদের আর্জি জানাতে ছুঁটে যাচ্ছেন সোনুর কাছে। না এক দিন কিংবা দুদিনের সাহায্য নয়, টানা এক বছর ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন সোনু সুদ। প্রতিটা মুহূর্তে মানুষের আর্জি ও আবেদনে সাড়া দিয়েছেন তিনি। তাই তিনিই এখন সাধারণের ভরসা। 

আরও পড়ুন- কোয়ারেন্টাইনেই প্রেমের সম্পর্ক তুঙ্গে, এবার গোপনে বিয়ে সারলেন মার্কিন গায়িকা আরিয়ানা গ্রান্দে 

সম্প্রতি সেই ছবি উঠে এলো সকলের সামনে। সোনু সুদের বাড়ির সামনে সোশ্যাল ডিস্টেন্স মেনেই দাঁড়িয়ে আছেন বহু মানুষ। কারুর হাতে প্রেসক্রিপশন, কারুর হাতে চিঠি, কেউ চাইছে একটা বেড, কেউ অক্সিজেন, কেউ আবার একটা চাকরি। কাউকে ফিরিয়ে দিতে নারাজ সোনু। নিজে বাড়ি থেকে বেরিয়ে সকলের সঙ্গে দেখা করছেন তিনি। সেই ছবি ধরা পড়েছিল ফ্রেমে। দিন-রাত কাজ করছে তাঁর টিম। 

 

 

আর সেই খবর প্রতিটা মুহূর্তে তা সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় উঠে আসছে। যা দেখা মাত্রই হয়ে উঠছে ভাইরাল। তবে এবার এ কী অভিযোগ আসল সোনুর নামে। তিনি নাকি কোনও কিছুই করেননি, তাও নিজের পিঠ চাপরাচ্ছেন। বিষয়টা হল এক রোগীর জন্য বেডের ব্যবস্থা করছিলেন সোনু। গঞ্জম এলাকার জেলা প্রশাসক জানান, তাঁর এলাকাতে কোনও বেডের ব্যবস্থা করেননি সোনু সুদ। সোনুর বক্তব্য, তিনি জেলা প্রশাসকের ফোন নম্বর দিয়েছিলেন, তিনি একবারও জানাননি, যে তিনিই ব্যবস্থা করেছেন। এই বলে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় চ্যাটের সব ছবি তুলে ধরেন। এখানেই শেষ নয়, এই টুইট দেখার পর গঞ্জম এলাকার জেলা প্রশাসক জানান, যে তিনি সোনুর কাজকে সমালোচনা করছেন না, কিন্তু তাঁদের নিজেদের টিম আছে, যারা এই বিষয়গুলো দেখে। তারাই সব ব্যবস্থা করছে।