২১ দিনের লকডাউন চলছে গোটা দেশে। বন্ধ কল-কারখানা, অফিস-কাছারি, শিক্ষাক্ষেত্র সবকিছুই। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইতে সামিল হয়েছে দেশবাসী। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হতে বারবার নিষেধ করছে প্রশাসন। তবে মহামারী করোনার এই দাপট সত্বেও বাজারে তো যেতেই হবে। কারণ পেটে খিদে পেলে মহামারীর ভয়ও মানুষকে আটকাতে পারবে না। তাই খোলা রয়েছে বাজার-হাট। কিন্তু সেখানে গেলেই আবার গায়ে গা লেগে যাচ্ছে একে অপরের সঙ্গে। প্রশাসন বারবার বলছে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা। কিন্তু আমাদের দেশের বাজার গুলিতে আর তার ব্যবস্থা কই। তাই নিজেকে বাঁচাতে এক অভিনব পদ্ধতি নিলেন এক ব্যক্তি।

বাতাস থেকে দ্রুত ছড়ানোর কোনও প্রমাণ মেলেনি, মারণ ভাইরাস নিয়ে আশার আলো দেখাল আইসিএমআর

আশঙ্কার কালো মেঘ আরও ঘনীভূত, পরিসংখ্যান বলছে দেশে ৬ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াবে ১০ লক্ষ

করোনা মোকাবিলায় চাই প্রচুর টাকা, তাই নাকি বিক্রি হচ্ছে মোদীর সাধের 'স্ট্যাচু অফ ইউনিটি'

২১ দিনের লকডাউনে গৃদবন্দি থাকলেও খাবারের খোঁজে পথে নাতেই হবে মানুষকে। আর সেই কারণেই সকাল বেলা আনাজা-পাতি, খাদ্য সামগ্রীর বাজারে উপচে পড়ছে ভিড়। দূরত্ব বজায় রাখার নিয়ম না মেনে একে অপরের ঘাড়ে উঠে জিনিস কিনতে ব্যস্ত ক্রেতারা। এই অবস্থায় বাজারের ভিড় থেকে এক ব্যক্তি নিজেকে বাঁচাতে সামনে ঝুলিয়ে নিলেন "দূরত্ব বজায় রাখুন" লেখা প্ল্যাকার্ড। চোখে চশমা, মুখে হ্লাভস আর গলায় প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে একেবারে  নিশ্চিন্তে বাজার করে ফিরলেন তিনি। ভিডিওটি নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই সকলে বাহবা দিলেন তাঁর বুদ্ধিকে।  

 

সরকার বারবার বলছে করোনা সংক্রমণ এড়াতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। তার পরেও নির্দেশিকা মানছেন না অনেকেই। ওই ব্যক্তির নেওয়া এই পদক্ষেপ তাঁদের কাছে দৃষ্টান্ত হতে পারে। কীভাবে নিজেকে ও পরিবারকে সুরক্ষিত রেখে সমাজকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে তা দেখিয়ে দিলেন তিনি।