করোনায় আক্রান্তের সংখ্য়া বাড়ছে ক্রমশ কলকাতা তথা রাজ্য়ে। এদিকে  শহরে মাস্কের আকাল। যাও বা কিছু দোকানে মিলছে তাও অত্যাধিক দামের জন্য অনেকে কিনতে চাইছেন না। আর এর ফলে বিকল্প কিছু ব্যবস্থা তাঁরা নিজেরাই করে নিচ্ছেন। কেউ দিচ্ছেন রুমাল  কেউ জড়াচ্ছেন গামছা। এদিন আরামবাগের গৌরহাটি মোড়ে দেখা গেল এক অভিনব দৃশ্য়। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে পলিথিনে মুখ ঢেকে দাড়িয়ে আছে এক যুবক।

আরও পড়ুন, করোনায় মৃতের দেহ নিয়ে তুলকালাম, আড়াই ঘণ্টা ধরে জীবাণুমুক্ত করা হল শ্মশান

বুধবার সকালে আরামবাগের গৌরহাটি মোড়ের একটি ওষুধের দোকানে ওষুধ কিনতে আসেন এক যুবক। অদ্ভুত ভাবে যিনি নিজের মুখ ঢেকে রেখেছেন আস্ত একটি পলিথিন শিটে। লোকজন থেকে দোকানি তাঁকে দেখে হেসে কুল পাচ্ছেন না। কিন্তু ওই যুবকের কোনও বিকার নেই। সরফরাজ খন্দকার নামে ওই যুবক পেশায় ড্রাইভার । তার সাফ জবাব, 'এই লক ডাউনের সময় পুলিস বের হলেই পেটাচ্ছে। তা আবার মাস্ক ছাড়া বের হলে আরও পেটাবে। আমি পেট ব্যথার ওষুধ কিনতে এসে পেটানি খেতে রাজী নই। তাই পলিথিন জড়িয়ে এসেছি।'

আরও পড়ুন, লকডাউন লঙ্ঘনের শাস্তি, কলকাতায় গ্রেফতারের সংখ্য়া ১৩০০ ছাড়াল


 কিন্তু মাস্ক না পড়ে হঠাৎ এই বুদ্ধি হল কেন। জবাবে সরফরাজ এর সোজাসাপটা উত্তর, 'আরামবাগ শহর পুরো খুঁজে মাস্ক পাইনি আমি। যাও দু একটা দোকানে আছে তার দাম এতো যে আমার কেনার ক্ষমতা নাই। কোথায় পাবো,আমি ড্রাইভার। লরি চালাই। এ মাসে এক সপ্তাহ কাজ হয়েছে, সেই থেকে ঘরে বসে। তাই আমি ভাবলাম এই কটা দিনের জন্য এতো টাকা খরচা করে লাভ কি। এই ভাবেই কাটিয়ে দেব।' সত্যি যে মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে না সেটা ওই ওষুধের দোকানদার আমির আহমেদ মল্লিকের কথা তেই তার প্রমাণ পাওয়া যায়। তিনি জানান,  দামী-কমদামী সব ধরনের মাস্ক অর্ডার দিয়েও পাওয়া যাচ্ছে না। যদিও কোনও এক জায়গা থেকে একটা মাস্ক জোগাড় করে নিজে ঠিক পড়েছেন আমির সাহেব।

আরও পড়ুন, আপাত স্বস্তি রাজ্য়ে,৪৬ জনের লালারসে পাওয়া গেল না করোনা